শনিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২১   মাঘ ৯ ১৪২৭   ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
চুয়াডাঙ্গায় গৃহহীনদের জমিসহ গৃহ প্রদান উপলক্ষে প্রেস ব্রিফিং ফরিদপুরে পদ্মারচরে শীতবস্ত্র বিতরন ভেকু মেশিন দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হল কুষ্টিয়ার ১২ ইটভাটা মাগুরায় ফুটবল প্রশিক্ষণের সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ বোয়ালমারীতে গৃহ হস্তান্তর উপলক্ষে প্রেস ব্রিফিং ফেব্রুয়ারিতেই খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান টিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
৯০

অভয়নগরের চাঞ্চল্যকর মামুন হত্যা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮ ডিসেম্বর ২০২০  

যশোরের অভয়নগর উপজেলায় চাঞ্চল্যকর আল-মামুন আকুঞ্জি হত্যা মামলার প্রধান আসামি চরমপন্থি দলের সদস্য রিপন ফকিরকে আটক করেছে যশোর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একটি দল।

গত মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার নবীনগর থানার সলিমগঞ্জ এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয় বলে বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) দুপুরে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান জেলা পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শুভরাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল গফুর ফকিরের ছেলে রিপন ফকির নিউ পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য। নিহত আল-মামুন আকুঞ্জির ভাই আরমান আকুঞ্জিও এক সময় তার সাথে নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত ছিলেন। কিন্তু পরে দু জনে আলাদা হয়ে যান। অপরদিকে রিপন ফকির নিহত আল-মামুনের চাচি বেবি বেগমের সাথে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে তিনি বেবি বেগমকে বিয়ে করেন। 

এতে বেবি বেগমের আগের পক্ষের ছেলে মাসুম আকুঞ্জি ক্ষিপ্ত হয়ে রিপন ফকিরকে হত্যার পরিকল্পনা করে। এ ঘটনা রিপন জানতে পেরে গত ১৭ অক্টোবর বিকেলে শুভরাড়া গ্রামের সোহান মোল্লার বাড়ির সামনে মাসুম আকুঞ্জি ও তার চাচাতো ভাই আল-মামুন আকুঞ্জির ওপর দলবল নিয়ে চড়াও হন রিপন ফকির। এরই এক পর্যায়ে আল-মামুন আকুঞ্জির বুকে গুলি করে রিপন। পরে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মামুনকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরে আটক রিপন ফকিরকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। এই অন্যতম মামলার সাক্ষী মাসুম আকুঞ্জিও আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রহমান তাদের জবানবন্দি ১৬৪ ধারায় রেকর্ড করেছেন।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন আরও জানান, অস্ত্র-গুলি ও ককটেল উদ্ধারের ঘটনায় আটক রিপন ফকিরের বিরুদ্ধে গত বুধবার অভয়নগর থানায় আরেকটি মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার অস্ত্র আইনের এ মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে তার ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়েছে। তবে রিমান্ড শুনানির আদেশ পুলিশ এখনো পায়নি।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর