রোববার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১১ ১৪২৬   ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

  যশোরের আলো
১১৫

অভয়নগরে অস্ত্রকাণ্ডের রহস্য উন্মোচন

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

যশোরের অভয়নগরে সেই অস্ত্র উদ্ধারের রহস্য উন্মোচন করেছে অভয়নগর থানা পুলিশ ও যশোর জেলা ডিবি পুলিশ। যৌথভাবে কাজ করে তারা এ অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনার রহস্য উন্মোচন করেছে, সেই সঙ্গে এ সন্ত্রাসী গ্রুপ সম্পর্কে উদঘাটন করেছে ভয়াবহ তথ্য। 

পুলিশের দেয়া তথ্য মতে, চরমপন্থী পরিচয় এ সন্ত্রাসী গ্রুপ দীর্ঘ দিন যাবত অভয়নগর ও মণিরামপুর উপজেলার ঘের ব্যবসায়ীদের জিম্মি করে চাঁদাবাজি করে আসছিলো।

আদিত্য ও হিরামণ গ্রুপ নামে এ সন্ত্রাসী গ্রুপের হাতে রয়েছে বেশ কিছু আগ্নেয়াস্ত্র। এই আগ্নেয়াস্ত্রকে পুঁজি করেই তারা চাঁদাবাজি চালিয়ে আসছিলো। আর তাদের এ আগ্নেয়াস্ত্র সরবরাহসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কলকাঠি নেড়ে আসছে ভারতে বসবাসরত দীপংকর নামে জনৈক ব্যক্তি। সম্প্রতি দীপংকরের সঙ্গে আদিত্যের মনোমালিন্যকে কেন্দ্র করে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করতে জাল ফেলে দীপংকর।

আর তার সহযোগী হিসেবে বেছে নেয় হিরামণ ও কুমারেশ নামে গ্রুপের দুই সদস্যকে। আদিত্যকে ফাঁসিয়ে একক আধিপত্য বিস্তারের জন্য কুমারেশকে দিয়ে আদিত্যের বাড়ির ধানের গোলায় অস্ত্র রেখে আসে কুমারেশ। আর এ কাজে তাকে সহযোগিতা করে হিরামণ। পরে পুলিশ ওই ধানের গোলা থেকে ১টি ওয়ান শুটারগান, ১টি রিভলভার, ২ রাউন্ড কার্তুজসহ দুই সন্ত্রাসীকে আটক করে।

আটককৃতরা হলো, যশোরের অভয়নগর উপজেলার আন্দা গ্রামের সমার মল্লিকের ছেলে কুমারেশ মল্লিক, জগদীশ শিকদারের ছেলে হীরামনী শিকদার। রোববার দুপুরে যশোর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) তৌহিদুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

এছাড়া সম্প্রতি মণিরামপুর উপজেলায় দুই ঘের মালিককে গুলি করার ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে আদিত্য রায়কে আটক করে কারাগারে পাঠায়।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার উল্লেখ করেন, কুমারেশের আটকের পর তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শনিবার ভোরে অভয়নগর উপজেলার আন্দা গ্রামের আদিত্য রায়ের বাড়ির ধানের গোলা ভিতর থেকে ১টি ওয়ান শুটারগান, ১টি রিভলবার ও ২ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। 

জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা পুলিশকে জানিয়েছে, আন্দা গ্রামের আদিত্য ও দীপঙ্কর প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসী গ্রুপ। চরমপন্থি সংগঠনের নেতা প্রশান্ত ওরফে প্রো মারা যাওয়ার পর অভয়নগরের দীপঙ্কর বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তে অবস্থান করে নিউ বিপ্লবী কমিউনিস্ট চরমপন্থি সংগঠনের পরিচয় দিয়ে এলাকার মাছের ঘের দখলসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও চাঁদাবাজি করে আসছে। ১ ফেব্রুয়ারি মণিরামপুরের সমলডাঙ্গা বিলের মনিরুজ্জামান গংদের উপর সশস্ত্র হামলা চালায় দীপঙ্কর বাহিনী।

এ ঘটনায় সন্ত্রাসী দেবু সরকার গ্রুপের ৬ জনকে পুলিশ আটক করে। এভাবে দীপঙ্করের প্রতিপক্ষ আদিত্যকে ফাঁসিয়ে এলাকায় একক আধিপত্য বিস্তারের জন্য তার সহযোগী কুমারেশের মাধ্যমে আদিত্যের বাসায় অস্ত্রগুলি রাখে। 

যশোরে অভয়নগর ও মণিরামপুর থানা এলাকার ডিবি পুলিশ ও অভয়নগর থানা পুলিশ যৌথ ভাবে অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে যশোর ডিবি পুলিশের ওসি মারুফ আহমেদ, রির্জাভ অফিস ইন্সপেক্টর মসিউর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর