মঙ্গলবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২   আশ্বিন ১১ ১৪২৯   ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
বিশ্বখ্যাত ম্যাগাজিন নিউজ উইকে অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশের গল্প অবহেলিত মেটে আলু স্বপ্ন দেখাচ্ছে চৌগাছাবাসীকে যশোর-ঝিনাইদহ-মাগুরায় শাক সবজির বিরাট ফলন অভিশপ্ত ইনডেমনিটি ও ইতিহাসের কালো আইন যশোর জেলা পরিষদ নির্বাচনে টিকে রইল ৫২ প্রার্থী ইতিহাস গড়ার অপেক্ষায় কালনা মধুমতি সেতু
৭৪

কালনা সেতু আগামী মাসেই উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, বহুল প্রতিক্ষিত কালনা সেতু আগামী মাসেই উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

সেতুমন্ত্রী বলেন, সেতু মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কালনা সেতুর সার সংক্ষেপ প্রেরণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী সার সংক্ষেপ দেখেছেন, তবে উদ্বোধনের তারিখ এখনও নির্ধারণ হয়নি। প্রধানমন্ত্রী সময় দিলে অক্টোবরের যে কোনো দিন কালনা সেতু উদ্বোধন হবে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে নড়াইলের কালনা সেতু পরিদর্শন করে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেলন হক, নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা, সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী গোপালগঞ্জ জোন সুরুজ মিয়া, সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী খুলনা জোন আসলাম আলী, নড়াইলের পুলিশ সুপার সাদিরা খাতুন, কালনা সেতুর প্রকল্প পরিচালক শ্যামল কুমার, কালনা সেতুর প্রকল্প ব্যবস্থাপক এবং সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) নড়াইলের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামানসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

কালনা সেতুর প্রকল্প ব্যবস্থাপক এবং সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) নড়াইলের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান বলেন, কালনা দেশের প্রথম ছয় লেনের সেতু। নেলসন লোস আর্চ টাইপের (ধনুকের মতো বাঁকা) সেতু এটি। সেতুটির দৈর্ঘ্য ৬৯০ মিটার এবং প্রস্থ ২৭ দশমিক ১ মিটার। উভয় পাশে ছয় লেনের সংযোগ সড়ক প্রায় সাড়ে ৪ কিলোমিটার। সেতু নির্মাণে মোট ব্যয় প্রায় ৯৬০ কোটি টাকা। এশিয়ান হাইওয়ের ওপর অবস্থিত এটি।

সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রে সিলেটের তামাবিল হয়ে ঢাকা, ভাঙ্গা, নড়াইল, যশোর, বেনাপোল, কলকাতা পর্যন্ত সরাসরি ভূমিকা রাখবে। তবে এতোদিন কালনা পয়েন্টে মধুমতি নদী ধারা বিছিন্ন ছিল। সেতু নির্মাণের ফলে সেই বিছিন্নতা আর রইল না।

কালনা সেতু চালু হলে শুধু জাতীয় ক্ষেত্রেই নয়, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখবে। ভারত, কলকাতা, আসামসহ দেশের মধ্যে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর, বেনাপোল ও নোয়াপাড়া নদীবন্দরের মধ্যে যোগাযোগের মাইলফলক রচিত হবে।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর