রোববার   ০৯ মে ২০২১   বৈশাখ ২৫ ১৪২৮   ২৭ রমজান ১৪৪২

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
যশোরে দুইজনের দেহে মিলেছে করোনার ভারতীয় ধরন খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার প্রয়োজন নেই : হানিফ ফরিদপুরে ভাইয়ের গুলিতে ভাই আহত চুয়াডাঙ্গার আরও ৩৮৪ কর্মহীন-অসহায়দের মধ্যে খাদ্য বিতরণ দামুড়হুদা সীমান্ত এলাকা থেকে কোটি টাকার মাদকদ্রব্য জব্দ ভারতীয় ড্রাইভারদের অবাধ বিচরণ, ঝুঁকিতে বেনাপোলবাসী মেহেরপুরে দুই হাজার হেক্টর জমিতে কচু চাষ ফরিদপুরে দুঃস্থদের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরণ ফেরি বন্ধ, দৌলতদিয়ায় পারের অপেক্ষায় শত শত যাত্রী কুমারখালীতে দুস্থদের জন্য বিনামূল্যে পোশাকের দোকান বোয়ালমারীতে ইফতার সামগ্রী বিতরণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের মেহেরপুরে অসহায় মানুষের মাঝে যুবলীগের সবজি বিতরণ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার গায়েব!
৩৯৬৫

‘ক্ষমতায় থাকতে নিজেকে অঘোষিত রানী ভাবতেন খালেদা জিয়া’

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০২১  

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া খুবই ফ্যাশন সচেতন। তিনি বিদেশি স্টাইলে চলাফেরা করতে অভ্যস্ত। তার জীবন-যাপন অত্যন্ত ব্যয়বহুল।

খালেদা জিয়া সব সময় নিজেকে ভিভিআইপি মনে করেন। যার কারণে সাধারণ মানুষের সাথে সব সময়ই দূরত্ব বজায় রেখে চলতেন। দরিদ্র, অসহায়, সমাজের অবহেলিত মানুষকে বিরক্তির চোখে দেখতেন বেগম জিয়া। আজও তার ভাড়াবাড়ি ফিরোজায় ভিক্ষা বা সহায়তা চাইতে গেলে অপমানিত হোন দরিদ্ররা। নিজের বিলাসী জীবনের বিপরীতে সাধারণ মানুষকে সহ্য করতে পারতেন না তিনি। যার কারণে দেশের সাধারণ মানুষও বেগম জিয়াকে ত্যাগ করেছে। 

বেগম জিয়ার জীবন-যাপন খুব কাছ থেকে দেখার অভিজ্ঞতা রয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর। বিএনপি নেত্রীর জীবন-যাপন ও সাধারণ মানুষকে নিয়ে পাঠকদের চাহিদার ভিত্তিতে প্রশ্ন করা হলে বেগম জিয়ার সম্পর্কে বেশিরভাগ নেতিবাচক কথাই বলেছেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

জাফরুল্লাহ বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার ভেতর সব সময় এলিট ভাব ছিলো। দু’বার প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় তার অহংকার আরো বেড়ে যায়। স্বল্প শিক্ষিত হওয়ায় বেগম জিয়া খুব দেমাগি। তিনি গরীব, অসহায় মানুষদের সহ্য করতে পারেন না। দেশ-বিদেশে ঘোরাফেরা করার কারণে সাধারণ মানুষকে সব সময়ে এড়িয়ে চলতেন বিএনপি নেত্রী। নিজেকে সব সময় বিশেষ ব্যক্তি হিসেবে গণ্য করতেন তিনি। যার কারণে ক্ষমতায় থাকতে তার কাছে সহজেই ভিড়তে পারতো না কেউ। এমনকি কারো সাথে হাত মেলালে বা কোনো শিশুকে ভুল করে কোলে তুলে নিলেও পরবর্তীতে বারবার সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিতেন এবং চরম বিরক্তি প্রকাশ করতেন।

জাফরুল্লাহ বলেন, গণতান্ত্রিক দেশের নাগরিক হয়েও ক্ষমতায় থাকতে নিজেকে অঘোষিত রানী ভাবতেন বেগম জিয়া। অন্তত তার সাজগোজ তাই বলতো। রাত জেগে হিন্দি ও পাকিস্তানি সিনেমা দেখা, দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা ছিলো বেগম জিয়ার নিত্যদিনের অভ্যাস। গরীব দেশের প্রধানমন্ত্রীর এমন জীবনযাপন ছিলো দৃষ্টিকটু। এমনকি ক্ষমতা হারানোর পরও নিজের বিলাসিতার অভ্যাস দূর করতে পারেননি বেগম জিয়া। বেগম জিয়া কোনোদিন দরিদ্র মানুষের প্রতিনিধিত্ব করেননি। সাধারণ মানুষকে সবসময় দূর দূর করেছেন। তাই জনগণও রাগ করে তার কাছ থেকে অনেক দূরে সরে গেছে। এখন যতোই পা ধরুক জনগণ অন্তত দোমাগি ও অহংকারী খালেদাকে সমর্থন করবে না বলেই আমি বিশ্বাস করি।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর