ব্রেকিং:
দেশে একদিনে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড এভাবে রিসোর্টে যাওয়া সমীচীন হয়নি: লাইভে মামুনুল হকের স্বীকারোক্তি

রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১   চৈত্র ২৭ ১৪২৭   ২৮ শা'বান ১৪৪২

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
যশোরে আরও ৫৯ জনের করোনা শনাক্ত যশোরে ছেলের হাতে পিতা খুন মাগুরায় মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ ঝিনাইদহে তেঁতুল গাছ থেকে পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু কুমারখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় মাদরাসাছাত্র নিহত ইবির ৫৮৬ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস গরম বাতাসে পুড়ে গেছে ঝিনাইদহের ১১৭ হেক্টর জমির ধান শখের মাছের খামারে কোটি টাকার হাতছানি বালিয়াকান্দিতে ভ্রাম্যমান মাছ বিক্রি’র উদ্বোধন রাজবাড়ীর তিন উপজেলায় ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা যশোরের চাঁচড়া হ্যাচারি পল্লীতে পোনা উৎপাদনে রুপালি বিপ্লব স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ সরকার গঠিত হয় একাত্তরের ১০ এপ্রিল শৈলকুপায় করোনায় একজনের মৃত্যু দৌলতদিয়ায় ৩০০ গ্রাম হোরোইনসহ, আটক ১
২৪

ঝিকরগাছায় স্ত্রীর লাঠির বাড়িতে স্বামীর মৃত্যু 

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০ মার্চ ২০২১  

যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলায় স্ত্রীর লাঠির আঘাতে মুস্তাকিন হোসেন সুমন (৩০) নামে এক যুবক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

গত বুধবার (১৮ মার্চ) রাতে ঢাকার অ্যাপ্যোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এর আগে গত ১৪ মার্চ স্ত্রীর লাঠির আঘাতে তিনি গুরুতর আহত হন।

নিহত সুমন ঝিকরগাছা উপজেলার ফুলবাড়ি গ্রামের দাউদ হোসেনের ছেলে। এই দম্পতির দুইটি সন্তান রয়েছে। বৃহস্পতিবার সুমনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, এই ঘটনায় অভিযুক্ত স্ত্রী মিনা খাতুনকে (২৬) আটক করেছে পুলিশ। আটক মিনা খাতুন আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মাহাদী হাসান তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

ঝিকরগাছা থানার ওসি আবদুর রাজ্জাক বলেন, সুমন প্রায় ৬ বছর মালেশিয়ায় ছিলেন। আড়াই বছর আগে দেশে ফিরেছেন তিনি। প্রেমের সম্পর্কে মিনা খাতুনের সঙ্গে সুমনের বিয়ে হয়। তাদের বড় মেয়ের বয়স ৮ বছর। তাদের বিয়ের বিষয়টি ভালভাবে গ্রহণ করেনি পরিবার। তবে দুই পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ ছিলো। কিন্তু সুমন শশুরবাড়িতে খুবই কম যেতেন। আবার শশুরবাড়ির লোকজন তার বাড়িতে আসুক, এটা তিনি পছন্দ করতেন না। গত ১৪ মার্চ জামাই বাড়িতে বেড়াতে আসে মিনা খাতুনের মা। এ জন্য মিনা খাতুন বেশ কিছু ভাল আইটেমের খাবার রান্নার করেন। এ নিয়ে বকাবকি করেন সুমন। তখন শাশুড়ি বলে খাবার রান্নায় যত টাকা খরচ হয়েছে দিয়ে দিবো, তোমরা গন্ডগোল করো না। বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সুমনের মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করেন মিনা খাতুন। এতে গুরুতর আহত হন সুমন। 

স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বেসরকারি হাসপাতালে পরে খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানকার চিকিৎসক সুমনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার করেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে অ্যাপালো হাসপাতালে ভর্তি করলে বুধবার বিকেলে তার মৃত্যু হয়।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর