ব্রেকিং:
দেশে একদিনে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড এভাবে রিসোর্টে যাওয়া সমীচীন হয়নি: লাইভে মামুনুল হকের স্বীকারোক্তি

রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১   চৈত্র ২৭ ১৪২৭   ২৮ শা'বান ১৪৪২

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
যশোরে আরও ৫৯ জনের করোনা শনাক্ত যশোরে ছেলের হাতে পিতা খুন মাগুরায় মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ ঝিনাইদহে তেঁতুল গাছ থেকে পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু কুমারখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় মাদরাসাছাত্র নিহত ইবির ৫৮৬ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস গরম বাতাসে পুড়ে গেছে ঝিনাইদহের ১১৭ হেক্টর জমির ধান শখের মাছের খামারে কোটি টাকার হাতছানি বালিয়াকান্দিতে ভ্রাম্যমান মাছ বিক্রি’র উদ্বোধন রাজবাড়ীর তিন উপজেলায় ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা যশোরের চাঁচড়া হ্যাচারি পল্লীতে পোনা উৎপাদনে রুপালি বিপ্লব স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ সরকার গঠিত হয় একাত্তরের ১০ এপ্রিল শৈলকুপায় করোনায় একজনের মৃত্যু দৌলতদিয়ায় ৩০০ গ্রাম হোরোইনসহ, আটক ১
২৭

ডার্কওয়েবে বিক্রি হচ্ছে করোনার ভ্যাকসিন

প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২১  

করোনাভাইরাসের টিকা, ভ্যাকসিন পাসপোর্ট। এমনকি করোনা নেগেটিভ টেস্ট রিপোর্ট। সবই বিক্রি হচ্ছে ডার্কওয়েব তথা অনলাইন কালোবাজারে।

মিলছে অক্সেফোর্ড বা অ্যাস্ট্রাজেনেকা, স্পুটনিক, সিনোফার্ম অথবা জনসন অ্যান্ড জনসনের মতো নামিদামি ব্র্যান্ডের টিকা।

ডোজপ্রতি দাম ৫০০ থেকে ৭৫০ মার্কিন ডলার। টিকাদানের সার্টিফিকেটও বিক্রি হচ্ছে। মূল্য ১৫০ ডলারের মতো। অনলাইন প্লাটফর্মে নাম-পরিচয় লুকিয়ে রমরমা টিকা বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে অজ্ঞাতনামা ব্যবসায়ীরা। মঙ্গলবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে অবাক করা এসব তথ্য উঠে এসেছে।

করোনা মহামারি রুখতে সারাবিশ্বেই জোরকদমে চলছে টিকাদান কর্মসূচি। এরই মধ্যে ভ্যাকসিন পাসপোর্টের পরিকল্পনাও করছে বিশ্বের কোনো কোনো দেশ।

বিশেষ করে যাদের দুটি ডোজই নেওয়া সম্পন্ন হয়েছে, তাদের পর্যটন বা ভ্রমণ সুবিধার জন্য এমন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

‘ডিজিটাল গ্রিন সার্টিফিকেট’ বা ‘ভ্যাকসিন পাসপোর্ট’ চালু করার প্রস্তাব এনেছে তারা। এর ফলে যারা ভ্যাকসিন নিয়ে ফেলেছেন, তাদের বিদেশ সফরে আর কোনো বাধা থাকবে না। বাস, ট্রেন ও বিমান ভ্রমণে টিকাগ্রহণের প্রমাণপত্র প্রয়োজন হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এমন পরিস্থিতিতে আগেভাগেই শুরু হয়েছে ভুয়া ভ্যাকসিন পাসপোর্টের বিকিকিনি। এ ছাড়া বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনার ভুয়া টিকা ছড়িয়ে পড়েছে বলে ইতোমধ্যে সতর্কতা জারি করেছে ইন্টারপোল।

গবেষকরা বলছেন, ডার্কনেটে সম্প্রতি টিকা ও ভ্যাকসিন পাসপোর্ট নিয়ে চটকদার নানা বিজ্ঞাপন বাড়ছে। তবে এসব টিকা আসল কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। ডার্কওয়েব হিসাবেও পরিচিত ডার্কনেট ইন্টারনেটেরই একটা অংশ। শুধু কিছু নির্দিষ্ট ব্রাউজার টুল দিয়েই এতে প্রবেশ করা যায়।

সাইবার সিকিউরিটি কোম্পানি চেকপয়েন্ট রিসার্চ বলছে, কারণে-অকারণে এই ডার্কওয়েবে ঘোরাঘুরি করে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের অনেকেই। চটকদার ও লোভনীয় বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখে কেউ কেউ কালোবাজারের ব্যবসায়ীদের ফাঁদে পড়ে। ভুয়া ডকুমেন্ট কিনতে নিজেদের বিস্তারিত তথ্য ও অর্থ প্রদান করে কেউ।

বিবিসি জানায়, গত জানুয়ারি থেকে হ্যাকিং ফোরাম ও অন্যান্য মার্কেটপ্লেস পর্যবেক্ষণ করছে চেক পয়েন্টের গবেষকরা। সেসময়ে ভ্যাকসিন নিয়ে এসব বিজ্ঞাপন প্রথম চোখে পড়ে। তারা বলছেন, তত কয়েক মাসে এই বিজ্ঞাপনের পরিমাণ তিন গুণ বেড়েছে। এমন বিজ্ঞাপনের সংখ্যা বর্তমানে প্রায় এক হাজার ২০০।

প্রতিবেদনে এমন বিজ্ঞাপানের কয়েকটি স্ক্রিনশট প্রকাশ করা হয়েছে। একটি বিজ্ঞাপনে মাত্র ৫০০ ডলারে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা বিক্রয়ের কথা বলা হয়েছে। আরেকটি বিজ্ঞাপনে মাত্র ১৫০ ডলারে করোনা টিকা গ্রহণের সার্টিফিকেট দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে মতে, এসব ভ্যাকসিনের বিক্রেতাদের বেশিরভাগই যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন, জার্মানি, ফ্রান্স ও রাশিয়ার। রাশিয়ান সিরিলিক ভাষার পাশাপাশি ইংরেজিতেও একাধিক বিজ্ঞাপন পেয়েছে গবেষকরা।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো