মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭   ১০ শাওয়াল ১৪৪১

  যশোরের আলো
৩৮

‘প্রাপ্ত তথ্য জাতীয় ডাটাবেজের সঙ্গে মিলিয়ে টাকা দেওয়া হচ্ছে’

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩ মে ২০২০  

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্যসচিব আহমদ কায়কাউস বলেছেন, তালিকায় প্রাপ্ত তথ্য জাতীয়  ডাটাবেজের সঙ্গে ম্যাচ (মিলে যাওয়া) করলেই টাকা দেওয়া হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে তথ্য তিন পর্যায়ে যাচাই করা হয়। এখানে কারও অনিয়ম করার সুযোগ নেই। তিনি জানান, এ পর্যন্ত ১৩ লাখ ৯০ হাজার মানুষের মধ্যে টাকা বিতরণ করা হয়েছে। ঈদের পরও এ কার্যক্রম চলবে। অন্য কোনোভাবে সহায়তা বা সুবিধাপ্রাপ্ত কেউ এ কর্মসূচির আওতায় টাকা পাবে না।

শুক্রবার (২২ মে) গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। আহমদ কায়কাউস জনপ্রশাসনের একজন উদ্যমী, উদ্যোগী ও গতিশীল কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত। তার নেতৃত্বেই দেশের ৫০ লাখ দরিদ্র ও স্বল্প আয়ের মানুষের মাঝে জনপ্রতি এককালীন আড়াই হাজার টাকা বিতরণ কর্মসূচি বাস্তবায়নের কাজ চলছে।

করোনাভাইরাসের প্রভাবে যাদের দৈনন্দিন আয়ের পথ বন্ধ হয়ে গেছে তাদের কথা চিন্তা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের দরিদ্র ও স্বল্প আয়ের ৫০ লাখ মানুষকে একাকালীন আড়াই হাজার টাকা সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দেন। এজন্য ১ হাজার ২৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী এ ভাতা পাওয়ার তালিকায় রয়েছেন- রিকশাচালক, ভ্যানচালক, দিনমজুর, নির্মাণশ্রমিক, কৃষক, দোকানের কর্মচারী, ব্যক্তি উদ্যোগে পরিচালিত বিভিন্ন ব্যবসায় কর্মরত শ্রমিক, পোলট্রি খামারের শ্রমিক, বাস-ট্রাকের পরিবহনশ্রমিক, সংবাদপত্রের হকারসহ নিম্ন আয়ের নানা পেশার মানুষ। প্রতি পরিবারে ন্যূনতম চারজন সদস্য ধরে এ কর্মসূচির আওতায় ২ কোটি মানুষ উপকারভোগী হবে। বিকাশ, রকেট, নগদ ও শিওর ক্যাশ-এর মাধ্যমে মোবাইল আর্থিক সেবায় এ টাকা বিতরণের কাজ চলছে।
 

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর