বুধবার   ১৯ জুন ২০২৪   আষাঢ় ৬ ১৪৩১   ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
সেন্টমার্টিনে বিজিবি ও পুলিশকে সতর্ক থাকার নির্দেশ বাংলাদেশকে সুপার এইটে তুললো বোলাররা দলীয় নেতাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী চামড়া কেনায় ট্যানারি মালিকরা ২৭০ কোটি টাকা ঋণ পাচ্ছে
২২

ফোনে চার্জ ধীরে হচ্ছে? এই টিপস মানলে বাড়বে গতি

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২৪  

বর্তমানে স্মার্টফোনে চার্জিং স্পিড ব্যাপক হারে বেড়েছে। আগের চেয়ে অর্ধেক সময় লাগে এখন। কিন্তু কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে। অত্যধিক ব্যবহার, ফোনে রাখা অ্যাপস এবং যত্ন না নেওয়ার ফলে সেই ফাস্ট চার্জিং ক্রমে স্লো চার্জিংয়ে পরিণত হয়। তাই ফোনের চার্জিং গতি পুনরায় বাড়ানোর জন্য এই টিপসগুলো মেনে চলুন।

মোবাইলে যদি কভার থাকে তাহলে চার্জিংয়ে বসানোর সময় সেটা খুলে নিন। গরমকালে চার্জিংয়ের ফলে স্মার্টফোনে স্বাভাবিকের তুলনায় বেশ তাপ উৎপন্ন হয়। পাশাপাশি ফোনে যদি কভার থাকে তাহলে ব্যাটারি হিট হওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়। তাই কভার সরিয়ে ফোন চার্জ করুন। পাশাপাশি আপনার যদি ওয়্যারলেস চার্জিং করার সুবিধা থাকে তাহলে তা এড়িয়ে চলুন। কারণ ওয়্যারলেস চার্জিংয়েও প্রচুর পরিমাণে তাপ উৎপন্ন হয়।

ফোন চার্জিংয়ে বসানোর সময় কখনোই গেম খেলবেন না। এতে প্রসেসর ও ব্যাটারির ওপর অত্যধিক পরিমাণে চাপ তৈরি হয়। যার ফলে গতি কমে যায় চার্জিংয়ের। শুধু তাই নয় ফোনের ব্যাটারির স্বাস্থ্য ধীরে ধীরে খারাপ হতে শুরু করে। গেমিংয়ের পাশাপাশি ইউটিউব এবং সোশ্যাল মিডিয়া ঘাঁটবেন না। এর ফলে চার্জিং গতি কমে যায়।

অ্যাপ ছাড়া কোনো কিছুই চলে না। তবে যেগুলো দরকার সেগুলো রেখে অপ্রয়োজনীয় বা বর্তমানে দরকার নেই সেগুলো ডিলিট করে দিন। কারণ আপনি ব্যবহার না করলেও ব্যাকগ্রাউন্ডে সেগুলো ফোনের চার্জ শুষে নেয়। দ্রুত শেষ হয়ে যায় ব্যাটারি এবং চার্জিংয়ের স্পিডও কমে যায়।

সবসময় টাইপ সি চার্জার ব্যবহার করুন। তবে সব থেকে জরুরি কোন ওয়াটের চার্জার ব্যবহার করছেন তা জানা। আপনার ফোনের বক্সে বা স্পেসিফিকেশনে চার্জিং ওয়াট লেখা থাকে। তার কম ক্ষমতা সম্পন্ন চার্জার দিয়ে চার্জ করলে গতি ক্রমশ কমে যাবে। ঠিক তেমনই নির্ধারিত ওয়াটের থেকে বেশি ক্ষমতার চার্জার ব্যবহার করলে তা ফোনের ব্যাটারির জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে।

এই মুহূর্তে প্রত্যেক স্মার্টফোনেই ব্যাটারি হেলথ অপশন থাকে। সেখানে ক্লিক করে ব্যাটারি ইউসেজ এবং কী কী কারণে ধীর গতিতে চার্জ করুন। তারপর সেই অনুযায়ী পদক্ষেপ নিন। যদি দেখেন সব কিছু ঠিক আছে তাহলে নিকটবর্তী সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করুন।

বহু মানুষ আছেন যারা সামান্য চার্জ করেই ব্যবহার শুরু করে দেন। তা অবিলম্বে বন্ধ করা উচিত। স্মার্টফোনের ব্যাটারি ২০ এর নিচে নেমে গেলে তবেই চার্জে বসান। পাশাপাশি স্মার্টফোন ৯০ শতাংশ চার্জ হয়ে গেলে চার্জিং বন্ধ করে দিন। এই প্রক্রিয়া অনুসরণ করা উচিত। বারংবার যদি কিছুক্ষণ চার্জে বসিয়ে ফোন ঘাঁটা শুরু করেন তাহলে ব্যাটারি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

শেষ উপায় হলো সার্ভিস সেন্টার বা স্মার্টফোনের দোকান। যদি ফোন ওয়ারেন্টির মধ্যে থাকে তাহলে সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে সুরাহা পেতে পারেন। ফোনে যদি হার্ডওয়্যার সমস্যা থাকে এবং সেটি যদি আপনার ওয়ারেন্টির মধ্যে থাকে তাহলে বিনামূল্যে সারিয়ে নিতে পারবেন। যদি ওয়ারেন্টি পেরিয়ে যায় তাহলে নির্দিষ্ট একটা টাকা খরচ করে স্মার্টফোন সারাতে হবে।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো