সোমবার   ২৫ অক্টোবর ২০২১   কার্তিক ১০ ১৪২৮   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
উদ্বোধন হলো স্বপ্নের পায়রা সেতু কৃষি উদ্যোক্তাদের সহযোগিতায় হবে বিশেষ সেল অবশেষে দেশে চালু হচ্ছে পেপ্যাল নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে ৪০ ভাগ বিদ্যুত নেয়ার পরিকল্পনা স্বল্পোন্নত দেশের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে এগিয়ে বাংলাদেশ
৭০

বজ্রপাতে মৃত্যু ঠেকাতে ৪৭৬ কোটি টাকার প্রকল্প হচ্ছে

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ১৩ অক্টোবর ২০২১  

বজ্রপাতে মৃত্যু ঠেকাতে ৪৭৬ কোটি টাকার একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হচ্ছে। এ প্রকল্পের আওতায় বজ্রপাতের ৪০ মিনিট আগে সতর্কবার্তা দেওয়ার যন্ত্র কেনা হবে। একই সঙ্গে বজ পাত থেকে বাঁচতে আশ্রয়কেন্দ্র করা হবে।

গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমান এসব তথ্য জানান। আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস ও ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচির ৫ বছরে পদার্পণ উদযাপন উপলক্ষে ওই সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব মো. মোহসীনসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আধুনিক বিশ্বে সাইক্লোনের মতো বজ্রপাতের ক্ষেত্রেও আগাম সতর্কবার্তা দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। কতগুলো মেশিন তৈরি করা হয়েছে যেগুলো ৪০ মিনিট আগেই শনাক্ত করতে পারে যে বজ্রপাত হবে এবং কোথায় হবে সেটা বলতে পারে। তাই বজ্রপাতের ক্ষেত্রে আর্লি ওয়ার্নিং দেওয়ার মেশিনগুলো আনা হবে। সিগন্যালটা অ্যাপের মাধ্যমে স্থানীয়দের মোবাইলে ম্যাসেজ যেতে পারে, সেই কাজও করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বন্যা ও ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রের মতো বজ্রপাত আশ্রয়কেন্দ্র করার পরিকল্পনা করেছি। এগুলো ডিজাইন করেছি, এক ডেসিমেল জায়গায় একটা পাকা ঘর থাকবে। প্রত্যেক ঘরে একটি করে লাইটনিং অ্যারেস্টার দেওয়া হবে, যাতে ২০ থেকে ২৫ মিনিটের মধ্যে সতর্কবার্তা শোনার পর মানুষ সেই আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে পারে। এই আশ্রয়কেন্দ্রগুলো বহুমুখী হবে। তিনি বলেন, প্রকল্প প্রণয়ন করা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর সম্ভাব্যতা যাচাই করছে, সেই রিপোর্ট এলে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে। ২০১১ সাল থেকে এ পর্যন্ত দুই হাজার ৮০০ জন বজ্রপাতে মারা গেছে। নিহত ব্যক্তিদের নাম-ঠিকানাসহ তালিকা মন্ত্রণালয়ের কাছে রয়েছে বলে জানান দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর