বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০   আশ্বিন ১৬ ১৪২৭   ১৩ সফর ১৪৪২

  যশোরের আলো
৭১

বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের অভিযোগে সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

সাংবাদিকদের মারপিট-লাঞ্ছিত করা ও জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতিকে মারপিটসহ একাধিক বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের হোতা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আশরাফুজ্জামান মুকুলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) গভীর রাতে মাছিমদিয়ার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

পুলিশ জানায়, ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে নড়াইলে বাণিজ্য মেলায় লটারির বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়া জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক (বর্তমান সভাপতি) অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলামকে পিটিয়ে আহত করে একটি চক্র। এ ঘটনায় ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা কবিরুল ইসলাম কুশল বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। আদালতের গ্রেফতারী পরোয়ানা থাকায় মামলার আসামি মুকুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি থাকাকালীন আশরাফুজ্জামান মুকুল নানা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। ২০১৭ সালের ২৪ মে মুকুলের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ছবি তুলতে গিয়ে মারপিটের শিকার হন আরটিভি ও দৈনিক সময়ের আলো পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি মোস্তফা কামাল। তার ক্যামেরা ভেঙে ফেলে সন্ত্রাসীরা। হামলার ঘটনায় প্রতিবাদ করতে গিয়ে লাঞ্ছিত হন সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম তুহিনসহ অন্যরা। 

সাংবাদিক মোস্তফা কামাল বলেন, সাংবাদিকদের কাজের কোনো স্বাধীনতা ছিল না এই ছাত্রনেতার কাছে। তার নেতৃত্বেই আমার ওপর হামলা চালানো হয়। আমার ক্যামেরা ভাঙচুর করা হয়।

জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি সূত্রে জানা যায়, ছাত্রলীগ নেতা মুকুলের নেতৃত্বে কমরেড নজরুলের ওপর হামলা চালানো হলেও অজ্ঞাত কারণে মামলা থেকে তার নাম বাদ দেওয়া হয়। পরে আদালতে সকল সাক্ষী হাজির হয়ে ছাত্রলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান মুকুলের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করেন। আদালত সেটা আমলে নিয়ে আসামি মুকুলের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। দীর্ঘদিন ধরে আসামি পলাতক আছে এই অজুহাতে ছাত্রলীগের দায়িত্বে থাকাকালীন তাকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। 

জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম জানান, বাণিজ্য মেলার নামে জুয়া খেলায় বাধা সৃষ্টি করায় ছাত্রলীগের নেতা মুকুলের নেতৃত্বে আমার ওপর হামলা চালানো হয়। এ ঘটনার বিচার না হলে মানুষ সামাজিক অনাচারের বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস পাবে না। 

জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি চঞ্চল শাহরিয়ার মিম বলেন, ছাত্রলীগ কোনো অন্যায়কারীর দায় নেবে না। সাবেক সভাপতি যদি সত্যিই কোনো অন্যায়ের সঙ্গে যুক্ত থাকেন তবে তা আইনিভাবেই সমাধান হোক এটাই ছাত্রলীগ চায়। 

এ ব্যাপারে নড়াইল জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন জানান, অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলামকে পেটানোর মামলায় আদালতের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পরে তাকে দীর্ঘদিন ধরে খুঁজছিল পুলিশ। খবর পেয়ে দ্রুতই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। 

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর