রোববার   ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩   মাঘ ২৩ ১৪২৯   ১৪ রজব ১৪৪৪

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
ফেব্রুয়ারি ঘিরে গদখালীর ৫০ কোটি টাকার ফুল বিক্রির লক্ষ্য ফুল চাষে রঙিন ঝিকরগাছার সাজেদার জীবন ঢাকা থেকে যশোর পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের অগ্রগতি ৭০ শতাংশ যশোরে ক্ষমা পেলেন আ’লীগ-যুবলীগের বহিষ্কৃত ৬ নেতা যশোরের ৪০০ টন বাঁধাকপি যাচ্ছে মালয়েশিয়া-সিঙ্গাপুর-তাইওয়ানে দেশের বাজারে কমলো সোনার দাম
২৪

বিশ্বের যেসব দেশে গাঁজা বৈধ

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২৩  

গাঁজা মাদক হিসেবে বেশি পরিচিত হলেও ওষুধ হিসেবেও এর প্রয়োগ হয়। অনেক দেশে সেই ছাড়পত্র থাকলেও সব রোগীর ক্ষেত্রে গাঁজার সুফল পাওয়া যায় না। তবে ডাক্তাররা বয়স্ক মানুষের সেই ওষুধ দিয়ে থাকেন। গাঁজাসহ বেশ কিছু মাদক পৃথিবীর অনেক দেশেই অবৈধ। কিন্তু কয়েকটি দেশে ইতিমধ্যেই বৈধ হয়েছে এসবের সীমিত সেবন ও বেচাকেনা।

গাঁজা একই সঙ্গে মাদক ও ওষুধ হিসেবে পরিচিত। কিন্তু বিশেষ করে ওষুধ হিসেবে সেটির প্রয়োগের ক্ষেত্রে উন্মাদনা বন্ধ হয়েছে। এক শণ গাছ থেকে গাঁজা পাওয়া যায়। সেটির ফুলে নানা পদার্থ থাকে। ‘ক্যানাবিনয়েড' গোত্রের এই সব পদার্থের মধ্যে টিএইচসি ও সিবিডি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ক্যাপসুল, তেল, স্প্রে, এমনকি ফুলের রূপেও ওষুধ হিসেবে এই সব পদার্থ পাওয়া যায়। সেগুলির মধ্যে শুধু টিএইচসি ও সিবিডির অনুপাতে পার্থক্য থাকে।


মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
অঞ্চল অনুসারে ভিন্ন আইন থাকায় গাঁজা বা অন্যান্য মাদকবিষয়ক আইনও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভিন্ন। কিছু রাজ্যে ব্যক্তিগত সেবন বৈধ হলেও দেখা যায় যে, সেখানে গাঁজার চাষে রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। কিন্তু ডাক্তারি পরামর্শে গাঁজা সেবন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনেক অংশেই বৈধ বলে জানা যায় ।

কানাডা
সারা বিশ্বে আলোড়ন তুলে সব রকমের গাঁজা সেবন ও চাষের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে কানাডা সরকার। ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে নতুন আইন এনে গাঁজা সার্বিকভাবে বৈধ ঘোষণা করা হয়।

আর্জেন্টিনা
গাঁজা সেবন অনেক দেশেই আইনত অপরাধ নয়। এমনই একটি দেশ ল্যাটিন আমেরিকার আর্জেন্টিনা। সেখানে চিকিৎসার জন্য গাঁজা আগে থেকেই বৈধ হলেও ব্যক্তিগত পছন্দে সেবনের জন্য ২০০৯ সাল থেকে বৈধতা দেওয়া হয়েছে।

জার্মানি
২০১৭ সালের ১০ মার্চ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী রোগীদের গাঁজা সংগ্রহের অনুমোদন দেয় সরকার। অনুমোদনের পর দেশটিতে গাঁজার চাহিদা ব্যাপকহারে বেড়েছে।


অস্ট্রেলিয়া
চিকিৎসার উদ্দেশ্যে গাঁজার সেবন ও চাষ অস্ট্রেলিয়ায় বৈধ। সেই দেশের আদিবাসীদের মধ্যে গাঁজা সেবনের মাত্রা শহরাঞ্চলে কিছুটা কম বলে জানা যায়।

বেলজিয়াম
প্রাপ্তবয়স্করা সেবনের জন্য তিন গ্রাম ওজন পর্যন্ত গাঁজা সঙ্গে রাখতে পারবেন ইউরোপের দেশ বেলজিয়ামে। ২০০৩ সাল থেকে কার্যকরী এই আইনে মাথাপিছু একটি গাঁজা গাছ লাগানোকেও বৈধতা দেওয়া হয়েছে।

বলিভিয়া
মাথাপিছু ৫০ গ্রাম গাঁজা বলিভিয়ায় বৈধ। 

চিলি
ল্যাটিন অ্যামেরিকার আরেক দেশ চিলিতেও ২০০৫ সাল থেকে বৈধ হয়েছে গাঁজা বা মারিহুয়ানার সেবন ও বিক্রি।

নেদারল্যান্ডস
সেই ১৯৭৬ সাল থেকেই ইউরোপের নেদারল্যান্ডসে গাঁজা বৈধ। সেই দেশের বিখ্যাত 'কফিশপ'-গুলিতে গাঁজা বিক্রি ও সেবন বৈধ হলেও পাঁচ গ্রামের বেশি গাঁজা রাখতে পারবেন না কেউ।

দক্ষিণ আফ্রিকা
আফ্রিকার প্রথম দেশ হিসাবে দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১৮ সালে গাঁজা সেবন ও গাঁজা চাষকে বৈধতা দেয়। প্রসঙ্গত, এই দেশের ডাক্তারেরা চিকিৎসার প্রয়োজনে গাঁজা সেবনের পরামর্শ দিতে পারেন ঠিকই, কিন্তু কোনো বিশেষ দোকান বা হাসপাতালে তা বিক্রির পরিষেবা এই মুহূর্তে নেই।

উরুগুয়ে
২০১০ সাল থেকে উরুগুয়েতে সম্পূর্ণরূপে বৈধ হয়েছে গাঁজা সেবন ও বিক্রি। শুধু তাই নয়, নিষেধাজ্ঞা উঠেছে গাঁজা চাষের ওপর থেকেও।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর