বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২   জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯   ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

  যশোরের আলো
৩২

ভোটের উৎসবে মাতবে যশোরের দুই লক্ষাধিক ক্ষুদে শিক্ষার্থী

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০২২  

দীর্ঘ দুই বছর পর আবারও ভোটের উৎসবে মাতবে যশোরের দুই লক্ষাধিক ক্ষুদে শিক্ষার্থী। আগামী ২ জুন তারা এক বছরের জন্য তাদের নেতা নির্বাচিত করবে। সব ধরনের প্রক্রিয়া মেনে অনুষ্ঠিত হবে এই নির্বাচন।

করোনার কারণে দুই বছর বন্ধ ছিল প্রাথমিকের স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন আয়োজন। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল করতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চালু করা হয় স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন। দীর্ঘ এক যুগ ধরে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চলতি বছরের স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচনের কর্মপরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। পরিকল্পনা অনুযায়ী, আগামী ২ জুন সারাদেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচনে ভোটগ্রহণ করা হবে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, নির্বাচনের বিষয়ে আজ থেকে ১৬ মে পর্যন্ত সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসাররা প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিদের অবহিত করবেন। ১৭ থেকে ২১ মে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষক, অভিভাবক ও ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ করা হবে ২২ মে। ২৩ মে ভোটার তালিকা প্রকাশ ও নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে।

তফসিল অনুযায়ী, ২৪ মে মনোয়নয়নপত্র আহ্বান, ২৮ মে মনোনয়নপত্র জমা এবং ২৯ মে মনোনয়নপত্র বাছাই ও বৈধ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। ৩০ মে মনোয়নয়নপত্র প্রত্যাহার এবং চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশনার। ২ জুন সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ শেষে ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

শিশুকাল থেকে গণতন্ত্রের চর্চা এবং গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শিক্ষার্থীদের শ্রদ্ধাশীল করার পাশাপাশি অন্যের মতামতের প্রতি সহিষ্ণুতা ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন, বিদ্যালয়ে শিখন শিখানো কার্যক্রমে শিক্ষকদের সহায়তা করা, শতভাগ ছাত্র ভর্তি ও ঝরেপড়া রোধে সহযোগিতা, শিখন শেখানোর কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে অভিভাবকদের সম্পৃক্ত করা এবং বিদ্যালয়ের পরিবেশ উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন করা হচ্ছে। সর্বপ্রথম ২০১০ সালে স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সূত্রমতে ওই বছর সারাদেশের ১৯ জেলার ২০ উপজেলার একশ’প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরাসরি নির্বাচনের মাধ্যমে স্টুডেন্টস কাউন্সিল গঠন করা হয়।

স্টুডেন্টস কাউন্সিলের কার্যক্রম স্থানীয় জনসাধারণ, ছাত্রছাত্রী এবং শিক্ষকদের মধ্যে বিপুল আগ্রহ ও উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি করে। ২০১০ সালে স্টুডেন্টস কাউন্সিলের কার্যক্রম সফল হওয়ায় ২০১১ সালে পরের বছর একশ’ প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ সকল মডেল বিদ্যালয়ে স্টুডেন্টস কাউন্সিল গঠনের নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এরপর সারাদেশে ৭শ’ ৪১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরাসরি নির্বাচনের মাধ্যমে স্টুডেন্টস কাউন্সিল গঠন করা হয়। পরের বছর ২০১২ সালে সারাদেশে সর্বমোট ১৩ হাজার ৫শ’ ৮৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ২০১৩ সালে দেশের সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরাসরি ভোটের মাধ্যমে স্টুডেন্টস কাউন্সিল গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। সেই থেকে প্রতি বছর ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন হয়ে আসছে। এরমধ্যে ২০২০ ও ২০২১ সালে ক্ষুদে প্রার্থী ও ভোটারদের এই নির্বাচন বন্ধ ছিল। করোনার কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্বাভাবিক পরিবেশে আসায় আবারও স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচনের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। আগামী ২ জুন যশোরের ১২শ’৮৯ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ লাখ ৭ হাজার ৪১ জন ক্ষুদে ভোটার ও প্রার্থী ভোট উৎসবে মাতবে।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর