রোববার   ০৯ মে ২০২১   বৈশাখ ২৫ ১৪২৮   ২৭ রমজান ১৪৪২

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
যশোরে দুইজনের দেহে মিলেছে করোনার ভারতীয় ধরন খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার প্রয়োজন নেই : হানিফ ফরিদপুরে ভাইয়ের গুলিতে ভাই আহত চুয়াডাঙ্গার আরও ৩৮৪ কর্মহীন-অসহায়দের মধ্যে খাদ্য বিতরণ দামুড়হুদা সীমান্ত এলাকা থেকে কোটি টাকার মাদকদ্রব্য জব্দ ভারতীয় ড্রাইভারদের অবাধ বিচরণ, ঝুঁকিতে বেনাপোলবাসী মেহেরপুরে দুই হাজার হেক্টর জমিতে কচু চাষ ফরিদপুরে দুঃস্থদের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরণ ফেরি বন্ধ, দৌলতদিয়ায় পারের অপেক্ষায় শত শত যাত্রী কুমারখালীতে দুস্থদের জন্য বিনামূল্যে পোশাকের দোকান বোয়ালমারীতে ইফতার সামগ্রী বিতরণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের মেহেরপুরে অসহায় মানুষের মাঝে যুবলীগের সবজি বিতরণ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার গায়েব!
৬৪

মাগুরায় নালিম চাষে কৃষকের আগ্রহ বাড়ছে

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪ মে ২০২১  

মাগুরায় নালিম চাষে কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে। কম পরিশ্রমে লাভ বেশি হওয়ায় জেলায় কৃষকরা বর্তমানে এ চাষে ঝুঁকছেন।

গ্রীষ্ম মৌসুমে বাজারে উঠতে শুরু করেছে বাঙ্গির বিকল্প ফল নালিম।  

মাগুরা সদরের ইছাখাদা, মুছাপুর, সত্যপুর, হাজরাপুর, হাজিপুর, নালিয়ালডাঙ্গি, শিবরামপুর ও নড়িহাটি গ্রামে হচ্ছে নালিমের চাষ। এবার আবহাওয়া অনুকূলে থাকলেও মাগুরায় নালিমের ফলন তেমন ভালো হয়নি।  

স্থানীয় চাষিরা জানান, উপযুক্ত সময়ে নালিমের বীজ রোপণ করেছেন তারা। কিন্তু তীব্র খরায় ও তাপদায়ে এবার নালিমের অনেক গাছ মরে যাওয়ায় ফলন তেমন ভালো হয়নি।

মাগুরা সদরের ইছাখাদা গ্রামের রজব আলী মোল্যা বলেন, এবার দুই বিঘা জমিতে নালিমের চাষ করেছি। এরইমধ্যে জমি থেকে নালিম তুলেছি। তবে এবার প্রচণ্ড তাপদায়ে নালিমের আশানুরূপ ফলন পাওয়া যায়নি। গত বছর যেখানে নালিমের বাম্পার ফলন হয়েছিল, সেখানে এবার ফলন খুবই কম। এবার জেলার বাইর থেকে অনেক ব্যাপারি নালিম কিনতে আসছেন কিন্তু উৎপাদন ভালো না হওয়ায় তাদের চাহিদা অনুযায়ী দিতে পারছি না। তার কারণ প্রচণ্ড খরতাপে নালিমের গাছ মরে নষ্ট হয়ে গেছে। তাই ফলন বিপর্যয় হওয়ায় আমাদের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে।  

রজব আলী মোল্যা আরও বলেন, আমাদের উৎপাদিত নালিম ঢাকা, মাদারীপুর, শিবচর, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায় যায়। ব্যাপারীরা প্রতি বছর ট্রাক ভর্তি করে নালিম নিয়ে যান। এবার প্রতি ট্রাক নালিম ৬০ হাজার থেকে ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে, যেখানে গত বছর এক লাখ টাকার ওপরে বিক্রি করেছি।

মাগুরা কৃষি বিভাগ বলছে, এবার জেলায় ১৬০ হেক্টর জমিতে নালিম চাষ হয়েছে। নালিম একটি পুষ্টিকর ফল। বাঙ্গির বিকল্প ফল হিসাবে নালিমের কদর অনেক। বর্তমানে রমজান মাসে নালিমের চাহিদা বেড়েছে। বাজারে এখন প্রতি পিস নালিম ১৫-২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। জেলায় দিন দিন এ চাষে কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে। আগামী দিনেও নালিম চাষ করতে জেলার কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।  

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর