রোববার   ০৯ মে ২০২১   বৈশাখ ২৫ ১৪২৮   ২৭ রমজান ১৪৪২

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
যশোরে দুইজনের দেহে মিলেছে করোনার ভারতীয় ধরন খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার প্রয়োজন নেই : হানিফ ফরিদপুরে ভাইয়ের গুলিতে ভাই আহত চুয়াডাঙ্গার আরও ৩৮৪ কর্মহীন-অসহায়দের মধ্যে খাদ্য বিতরণ দামুড়হুদা সীমান্ত এলাকা থেকে কোটি টাকার মাদকদ্রব্য জব্দ ভারতীয় ড্রাইভারদের অবাধ বিচরণ, ঝুঁকিতে বেনাপোলবাসী মেহেরপুরে দুই হাজার হেক্টর জমিতে কচু চাষ ফরিদপুরে দুঃস্থদের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরণ ফেরি বন্ধ, দৌলতদিয়ায় পারের অপেক্ষায় শত শত যাত্রী কুমারখালীতে দুস্থদের জন্য বিনামূল্যে পোশাকের দোকান বোয়ালমারীতে ইফতার সামগ্রী বিতরণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের মেহেরপুরে অসহায় মানুষের মাঝে যুবলীগের সবজি বিতরণ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার গায়েব!
২৫

যশোরে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ দিয়ে চলছে পশু চিকিৎসা

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪ মে ২০২১  

যশোরের শার্শা উপজেলা প্রাণিসম্পদ দফতরের মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ দিয়ে গবাদি পশু-পাখির চিকিৎসা চালানোর অভিযোগ উঠেছে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে। ফলে সুচিকিৎসার অভাবে প্রতিনিয়ত গরু, ছাগল, হাঁস, মুরগি মারা যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন খামারি ও চাষিরা। এতে লোকসান গুনতে হচ্ছে তাদের।

সোমবার (৩ মে) সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অসুস্থ গরু, ছাগলের শরীরে পুশ করার জন্য উপজেলার নাভারন প্রাণিসম্পদ দফতরের র্যাকে রাখা প্রোক্সাসিন ইনজেকশনের কাঁচের বোতলের গায়ে মেয়াদ উল্লেখ আছে ২০২১ সালের ২১ মার্চ। আরেকটি র্যাকে রাখা আছে কেমোনিড (ওরাল পাউডার)। এগুলোর গায়েও ব্যবহারের মেয়াদ উল্লেখ আছে ২০২১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন খামারি ও চাষির অভিযোগ, ২৮ এপ্রিল কয়েকজন খামারির অসুস্থ গরু ও ছাগলের দেহে প্রোক্সাসিন ইনজেকশন পুশ করা হয়। এরপরই তাদের কিছু গরু ও ছাগল আরও বেশি অসুস্থ হয়ে যায়।

সরকারি ওষুধ বাইরে বিক্রি করে দিয়ে এসব ওষুধ সবার চোখের আড়ালে ব্যবহার করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তারা।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মাসুমা আক্তার বলেন, ‘কীভাবে আমার দফতরে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ এলো আমি বুঝতে পারছি না। আমার মনে হয় বাইরের কেউ শত্রুতা করে এখানে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রেখে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।’

এ ব্যাপারে জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মাহবুব আলম বলেন, ‘বিষয়টি জানার পর আমি এসব মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ব্যবহার না করে নষ্ট করে দিতে বলেছি।’

তিনি উপজেলা প্রণি সম্পদ কর্মকর্তা একজন সৎ ও ভালো দাবি করে তিনি বলেন, ‘এটা সামান্য ছোট একটি ঘটনা। অনেক সময় ভুলের কারণে এসব হয়ে থাকে। ভবিষ্যতে যাতে এসব ঘটনা না ঘটে সে ব্যাপারে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।’

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর