সোমবার   ২৫ অক্টোবর ২০২১   কার্তিক ১০ ১৪২৮   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
উদ্বোধন হলো স্বপ্নের পায়রা সেতু কৃষি উদ্যোক্তাদের সহযোগিতায় হবে বিশেষ সেল অবশেষে দেশে চালু হচ্ছে পেপ্যাল নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে ৪০ ভাগ বিদ্যুত নেয়ার পরিকল্পনা স্বল্পোন্নত দেশের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে এগিয়ে বাংলাদেশ
৮৩

শারদ সাজে পূজার আনন্দে

লাইফস্টাইল ডেস্ক:

প্রকাশিত: ১২ অক্টোবর ২০২১  

দুর্গাপূজার সবচেয়ে বড় আনন্দ সকালে অঞ্জলি দেওয়া আর মণ্ডপে মণ্ডপে ঘুরে বেড়ানো। তবে উৎসবের আনন্দে শুধু ঘুরে বেড়ালেই চলবে না, পাশাপাশি খেয়াল রাখতে হবে সাজসজ্জার দিকেও। শারদীয়া দুর্গাপূজার ষষ্ঠী থেকে দশমীতে সাজা যাবে ইচ্ছেমত। আর সেটা হবে নিজের স্বাচ্ছন্দ্যবোধ, রুচি ও ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মিলিয়ে। পূজার একেক দিন যেনো একেকটি রঙের। তাই পাঁচদিনে দরকার ভিন্ন ধরনের সাজ। এর মধ্যে আবার রাত-দিনের তফাৎটাও মনে রাখতে হবে। পূজা উৎসবে আধুনিক ও ঐতিহ্যবাহী যে কোনোভাবে নিজেকে সাজিয়ে তোলা সম্ভব।

ষষ্ঠীর সাজ

ষষ্ঠীর দিন পূজার পাশাপাশি আরো অনেক কাজ থাকে। মণ্ডপে মণ্ডপে ঘুরতে যাওয়ার আনন্দটাও অনেক। এদিন সাজটা একটু হালকা হলেই ভালো। চোখে হালকা আইশ্যাডো, চিকন লাইনার ও পছন্দসই রঙের লিপস্টিকে ঠোঁট রাঙিয়ে নিন। ছোটদের জন্য হালকা এবং ন্যাচারাল সাজই মানানসই।

সপ্তমীর সাজ

সপ্তমীতে মন্দিরে যাওয়া বা পূজার অঞ্জলি দেয়ার সময় প্রকৃতির সজীব ভাবটা সাজে থাকা চাই। দিনের উৎসবে বেইজ করার জন্য ত্বকের টোনের সঙ্গে মিলিয়ে ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার বা খুব হালকা করে ফাউন্ডেশন লাগিয়ে এর ওপর পাউডার বুলিয়ে নিন। তবে মেকআপের শুরুতে ক্লিনজিং মিল্ক দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে সানস্ক্রিন লোশন লাগাতে ভুলবেন না। দিনে চোখের সাজে অফ হোয়াইট হাইলাইট, কালো ও বাদামি রঙের কম্বিনেশনের আইশ্যাডো, পেনসিল আই লাইনার ব্যবহার করতে পারেন। অথবা চাইলে শুধু কাজলের একটা হালকা রেখা টেনে দিন চোখে। মাশকারা পরুন মোটা করে। ঠোঁটে কোরাল বা হালকা গোলাপি লিপস্টিক লাগাতে পারেন। সঙ্গে হালকা পিংক ব্লাশান। শাড়ি পরলে মানানসই টিপ লাগিয়ে নিতে পারেন। পরিণীতা হলে সিঁথিতে দিন সিঁদুর।

অষ্টমীর সাজ

অষ্টমী সাজেও দিনের বেলায় ন্যাচারাল লুকটা ধরে রাখা জরুরি। দিনের উৎসবে বেইজ করার জন্য ত্বকের টোনের সঙ্গে মিলিয়ে খুব হালকা করে ফাউন্ডেশন লাগাতে পারেন। পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে বা কন্ট্রাস্ট করে চোখে আইশ্যাডো লাগান। পেন্সিল আই লাইনার দিয়ে কিছুটা মোটা করে লাইন টেনে আইশ্যাডো ব্রাশ করে দিন। মাশকারা পরুন ঘন করে। ঠোঁটে লাল রঙের লিপস্টিক লাগাতে পারেন। কানের পেছনে গুঁজে দিন বেলি ফুলের মালা কিংবা সাদা ও লাল জারবেরা। অষ্টমীর রাতের সাজটা চাই জমকালো। ফাউন্ডেশন লাগিয়ে তার ওপর ফেস পাউডার লাগিয়ে নিন। চোখের ওপর ড্রেসের সঙ্গে আইশ্যাডো কম্বিনেশন করে লাগিয়ে নিন। এর ওপর হাইলাইট করুন গোল্ডেন কালার দিয়ে। চোখের আউটার কোণে ব্ল্যাক কালার করে নিন। চোখে মোটা করে কাজল পরুন। মাশকারা পরুন কয়েক পরত করে। তাহলে ঘন লাগবে আইলেশ। ব্লাশন পরুন গাঢ় করে। ঠোঁটে লিপস্টিক গাঢ় রঙে রাঙিয়ে নিন।

নবমীর সাজ

নবমী সাজ হবে অন্যরকম। দিনের বেলার সাজে ন্যাচারাল লুকটা ধরে রাখা জরুরি। পেন্সিল আই লাইনার দিয়ে কিছুটা মোটা করে লাইন টেনে আইশ্যাডো ব্রাশ করে দিন। মাশকারা পরুন ঘন করে। ঠোঁটে হালকা রঙের লিপস্টিক লাগাতে পারেন। সঙ্গে হালকা ব্রাউন রঙের ব্লাশান। কপালে বড় লাল টিপ লাগিয়ে নিতে পারেন। পরিণীতা হলে সিঁথিতে দিন সিঁদুর। পায়ে আলতা পরুন মোটা করে। চুল সামনের দিকে সেট করে পেছনে খোঁপা করে রাখুন। কানের পেছনে গুঁজে দিন ফুল। নবমীতে হয় সান্ধ্য পূজা। তাই সবাই সন্ধ্যার পরই মণ্ডপে যান। আর সন্ধ্যার পর বলেই এদিন অনেকটা পার্টি সাজে সাজেন সবাই। ভারি গয়না, বৈচিত্র্যপূর্ণ পোশাক, ভারি মেকআপ, চুলের সাজ, তাজা ফুল এদিনের সাজের অনুষঙ্গ।

দশমীর সাজ

শারদীয়া পূজার প্রধানতম আকর্ষণ দশমী। দশমীর সাজ মানে লাল পাড়ে সাদা শাড়ি, একদম লাল রঙা শাড়ি বা সাদা জামদানি আর লাল ব্লাউজ হাতে নকশা করা। প্রায় সব বয়সী নারীদের ক্ষেত্রেই এটি প্রযোজ্য। অনেকে আবার প্রতিমার মত সাজতে পছন্দ করেন। চোখে কাজলের টানা লাইনার, লাল লিপস্টিক, স্নিগ্ধ মেকআপ ও সিঁদুর। এদিন ঠাকুরকে সিঁদুর পরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি নিজেরাও মেতে উঠেন সিঁদুর খেলায়। একান্তই যদি শাড়ি না পরেন তা হলে সাদা আর লালের কম্বিনেশনের কোনো ড্রেস পরুন। মাথায় একগুচ্ছ সাদা ফুলের মালা আর কপালে বড় লাল টিপে পরিপূর্ণতা পাবে আপনার দশমীর সাজ।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো