বুধবার   ১৭ এপ্রিল ২০২৪   বৈশাখ ৩ ১৪৩১   ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
ঈদের সময় রেমিট্যান্স এসেছে সাড়ে ৯ হাজার কোটি টাকা হিটলারের চেয়েও ভয়ংকর নেতানিয়াহু: ওবায়দুল কাদের দ্বাদশ সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন বসছে ২ মে চলতি অর্থবছরে প্রবৃদ্ধি হবে ৬.১ শতাংশ: এডিবির পূর্বাভাস চুয়াডাঙ্গায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০.৬ ডিগ্রি দুটি যুদ্ধ জাহাজের পাহারায় আমিরাতের পথে এমভি আব্দুল্লাহ চাল আমদানির অনুমতি পেল আরও ৫০ প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে আশ্রয় নিলেন বিজিপির আরও ১৩ সদস্য
১৯২

শার্শার গাছে গাছে আমের মুকুল

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

যশোর জেলার শার্শা উপজেলা ও তার আশেপাশের এলাকাগুলোতে ছোট-বড় অনেক গাছে আমের মুকুল এসেছে। ঋতুরাজ বসন্তের আসন্ন আগমনে গাছে গাছে শোভা পাচ্ছে সোনালী রঙের আমের মুকুল।

শার্শার গ্রামগুলোতে ঘুরে দেখা যায়, বাড়ির আঙিনা, পুকুরপাড়, বাগানসহ সব আম গাছে মুকুল ভরে গেছে। স্থানীয় দেশি জাতসহ হিমসাগর, গোবিন্দ ভোগ, অম্রপালি, ফজলি, লতাই, ন্যাংড়াসহ নানা জাতের আমের গাছে এসেছে পর্যাপ্ত মুকুল।

শার্শার বিভিন্ন নার্সারিতে কথা বললে তারা জানান, মুকুল আসার সাথে সাথে মুকুলে সকালে পানি স্প্রে করতে হয় ও হালকা কীটনাশক স্প্রে করা দরকার। কুয়াশা বেশি হলে আমের মুকুল ঝরে যায়। মুকুল থেকে গুটি ধরার পরে গাছে পিপড়া লাগতে পারে, পিঁপড়া আমের গুটির ক্ষতিসাধন করে থাকে। তবে এ বছর কুয়াশা কিছুটা কম থাকায় আমের ফলন ভালো ও বেশি হতে পারে।

এই ব্যাপারে আম চাষি আহসান হাবিব বলেন, আমরা আশা করি এবার আমের বাম্পার ফলন হবে, আমাদের আম দেশের বিভিন্ন শহরে চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করা হয়। তিনি আরও বলেন, এ বছর মুকুল আসার মুহূর্তে বৃষ্টি না হওয়ায় আমের মুকুল তাপে পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে আশা করছি গত বছরের চেয়ে এ বছর আমের বাম্পার ফলন হবে।

শার্শা উপজেলা কৃষি অফিসার শ্রী প্রতাপ মন্ডল জানান, এ উপজেলায় ৬শ ৯০ হেক্টর জমিতে আমের চাষ হয়েছে। অধিকাংশ গাছে আমের মুকুল বেরিয়েছে। আমরা কৃষকদের কুয়াশা ও পোকা-মাকড় থেকে গুটি রক্ষায় আম চাষি ও বাগান মালিকদের ছত্রাকনাশক প্রয়োগসহ নানা পরামর্শ প্রদান করছি। বাণিজ্যিকভাবে আমের চাষ শুরু হয়েছে, এখানকার আম দেশের গুণ্ডি পেড়িয়ে বিদেশও রপ্তানি হচ্ছে। এবার আবহাওয়া অনুকূল থাকায় আম গাছে আগাম মুকুল এসেছে।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর