রোববার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১১ ১৪২৬   ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

  যশোরের আলো
১২

সামর্থ্য থাকার পরও হজ না করার পরিণাম

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস (রা.) বর্ণনা করেছেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘তোমরা দেরি না করে হজ আদায় করো। কারণ, তোমাদের কেউ জানে না, কী বিপদাপদ তার সামনে আসবে।’ [আহমাদ, আলমুসনাদ : ৭৬৮২; ইবনু মাজাহ, আসসুনান : ৩৮৮২]

কত সামান্য টাকায় হজের খরচ হয়ে যায় জানেন? আমাদের দেশের বেশিরভাগ বিবাহিতার হজ যে ফরজ তা জানেন? হিসেব করে দেখুন, আপনারও সম্ভবত হজ করা ফরজ, অথচ আপনি তা আদায় করছেন না, প্রস্তুতি নিচ্ছেন না। ইচ্ছাও করছেন না। গাফিলতি করছেন। অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন অসম্ভব ক্ষতিগ্রস্থের দলে।

দ্বিতীয় খলিফা উমর ইবনুল খাত্তাব (রা.) কী ভয়ংকর কথা বলেছেন জানেন? তিনি বলেছেন :

‘আমার ইচ্ছা হয়, বিভিন্ন শহরে আমি লোক পাঠাই, তারা যেন দেখে সামর্থ্যবান হওয়ার পরেও কে হজ করেনি। এরপর তারা তার উপরে জিযিয়া আরোপ করবে। কারণ, তারা মুসলিম নয়, তারা মুসলিম নয়।’ [ইবনু হাজার, আততালখিসুল হাবির : ২/২২৩]

তারা মুসলিম নয় বলেছেন তিনি! তারা মুসলিমই নয়! কী ভয়ংকর কথা! কে বলেছেন এই ভয়ংকর কথা? রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাহাবিদের মাঝে সর্বোত্তমদের একজন, জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত সাহাবিদের একজন এই কথা বলেছেন। যাঁর মর্যাদা এবং জ্ঞানের উচ্চতার ব্যাপারে অনেক হাদিস বর্ণিত হয়েছে, সেই খলিফা উমর (রা.) বলেছেন।

উমার (রা.) আরো ভয়ংকর কথা বলেছেন , ‘যে ব্যক্তি আর্থিক স্বচ্ছলতা সত্ত্বেও হজ না করে মারা গেল, আমি জানি না সে ইহুদি হয়ে মারা গেল নাকি খৃস্টান হয়ে মারা গেল।’ তিনি এই কথা তিনবার বলেছেন। [বাইহাকি : ৪/৩৩৪]

ইহুদি-খৃস্টান হয়ে মারা যাবার কথা উমার (রা.) পরপর তিনবার বলেছেন! তিনবার!

এরপরেও কি ছুঁতো আর বাহানা খুঁজবো? হজ আদায়ের প্রস্তুতি নেবো না?

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো