রোববার   ০৯ মে ২০২১   বৈশাখ ২৫ ১৪২৮   ২৭ রমজান ১৪৪২

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
যশোরে দুইজনের দেহে মিলেছে করোনার ভারতীয় ধরন খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার প্রয়োজন নেই : হানিফ ফরিদপুরে ভাইয়ের গুলিতে ভাই আহত চুয়াডাঙ্গার আরও ৩৮৪ কর্মহীন-অসহায়দের মধ্যে খাদ্য বিতরণ দামুড়হুদা সীমান্ত এলাকা থেকে কোটি টাকার মাদকদ্রব্য জব্দ ভারতীয় ড্রাইভারদের অবাধ বিচরণ, ঝুঁকিতে বেনাপোলবাসী মেহেরপুরে দুই হাজার হেক্টর জমিতে কচু চাষ ফরিদপুরে দুঃস্থদের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরণ ফেরি বন্ধ, দৌলতদিয়ায় পারের অপেক্ষায় শত শত যাত্রী কুমারখালীতে দুস্থদের জন্য বিনামূল্যে পোশাকের দোকান বোয়ালমারীতে ইফতার সামগ্রী বিতরণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের মেহেরপুরে অসহায় মানুষের মাঝে যুবলীগের সবজি বিতরণ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার গায়েব!
১৭৭৮

১৭ মার্চকে কলঙ্কিত করতে বিএনপির নতুন পরিকল্পনা!

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০২১  

সরকারের সব কিছুতেই গাত্রদাহ বিএনপির। এ কারণে পান থেকে চুন খসার আগেই তারা নিজেদের ‘পেইড এজেন্ট’ দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় চালায় একের পর এক অপপ্রচার।

সাংগঠনিক তৎপরতার বিপরীতে দলটির নেতৃবৃন্দ নালিশ, প্রোপাগাণ্ডা ও অভিযোগ করা নিয়েই সময়ক্ষেপণ করেন। দলীয় রাজনীতি বলতে তাদের আর কিছুই অবশিষ্ট নেই। নতুন খবর হলো, মুজিব বর্ষ তথা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বর্ষকে কলঙ্কিত করতে নতুন পরিকল্পনায় নেমেছে বিএনপি।

বিশ্বস্ত সূত্রের তথ্যমতে, সরকার পতনের রোগে আক্রান্ত হয়ে স্বাধীনতাবিরোধী বিএনপি চক্র ৫০০ মিলিয়ন ডলারের একটি প্রজেক্ট হাতে নিয়েছে। যে প্রজেক্টের অদ্বিতীয় উদ্দেশ্য হচ্ছে, দেশ-বিদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাংলাদেশবিরোধী অপপ্রচার চালানো এবং সরকারের বিরুদ্ধাচরণ করা। একইসঙ্গে চলমান মুজিব বর্ষকেও বিতর্কিত করতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ।

তারই অংশ হিসেবে বুধবার (১০ মার্চ) তারা আগামী ১৭ মার্চকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির মাধ্যমে কলঙ্কময় করতে রাজধানীর নয়াপল্টনস্থ একটি হোটেলে বসে নাশকতার পরিকল্পনায় গোপন বৈঠক করছিল। এ সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের পাশে অবস্থিত ভিক্টোরি নামের ওই হোটেলের পঞ্চম তলায় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছে। তবে কী কারণে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

এ ব্যাপারে জানতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে জানান, ঘটনাটি ফোনে শুনলাম। তবে ঠিক কি কারণে এই বিস্ফোরণ সে সম্পর্কে এখনই নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছেনা। তবে এ নিয়ে বিএনপির সংশ্লিষ্টতা খোঁজাটা বোকামি হবে। কারণ, বিএনপির কেউই এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়।

পল্টন মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) মো. সেন্টু মিয়া বলেন, ভিক্টোরি হোটেলের বিস্ফোরণের ঘটনায় আমরা এ পর্যন্ত তিনজন আহত হওয়ার খবর পেয়েছি। তবে আহতরা সবাই পথচারী, বিএনপির কর্মী কি না সেটা জানা যায়নি। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত বলা যাবে।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশ ও দশের ভালো হোক, তা বিএনপি চায় না। সরকার যা করে, তাতেই তাদের সমস্যা। তাই দেশ যখন সরকারপ্রধানের প্রাজ্ঞ নেতৃত্বে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে পৌঁছে গেছে। জন আস্থা অর্জনের পাশাপাশি সর্বমহলে প্রশংসিত হচ্ছে, তখনই বিএনপির গাত্রদাহ শুরু হয়ে গেছে। পূর্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবে তারা মুজিব বর্ষকে বিতর্কিত করতে তাই ভিক্টোরি হোটেলে গোপন বৈঠকে বসেছিল। আর সেখানেই ঘটলো বিস্ফোরণ। মূলত ১৭ মার্চ সারাদেশে মিছিলের নামে বিশৃঙ্খলা এবং নাশকতা সৃষ্টির মাধ্যমে বর্হিবিশ্বের বুকে সরকারের সুনাম ক্ষুণ্ণ করতেই ছিল তাদের আজকের এই মিটিং।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর