শুক্রবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০   আশ্বিন ৩ ১৪২৭   ৩০ মুহররম ১৪৪২

  যশোরের আলো
১৮০

৬০ কোটি টাকা আয়ের স্বপ্ন যশোরের ফুল চাষিদের

জেলা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ফুলের বাজারে ভাল ব্যবসা করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন যশোরের ফুল চাষিরা। ফুলের দাম ভালো পাওয়ায় এ দুটি দিবসে ৬০ কোটি টাকার ফুল বিক্রির টার্গেট নিয়েছেন তারা। প্রায় সাড়ে ৬০০ হেক্টর জমিতে উৎপাদিত ফুল হয়েছে ফুল।

বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) থেকে দুই দিবসকে সামনে রেখে ফুল তোলার কাজ শুরু করেছে চাষিরা।

ঝিকরগাছার গদখালীর ফুল ব্যবসায়ী আজিজ রহমান জানান, সরকার এবার বর্ষপঞ্জি হিসেবে ১৪ ফেব্রুয়ারি বসন্ত উৎসবের দিন নির্ধারণ করেছে। একই দিন বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। তারপর ২১ শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। এ দিবস দুটোতে ফুলের বাজার ধরতে তারা অনেক ব্যস্ত সময় পার করছেন।

ফুল চাষি ও ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম বলেন, এবার ১৫ বিঘা জমিতে রজনীগন্ধা, ডাবল রজনীগন্ধা (ভুট্টা) ও হাইব্রিড রজনীগন্ধা (উজ্জ্বল), গোলাপ, জারবেরা, গাঁদা এবং গ্লাডিওলাস চাষ করেছি। বসন্ত  উৎসব ও ভালোবাসা দিবস এবং ২১ শে ফেব্রুয়ারিকে কেন্দ্র করে ভালো ব্যবসার আশা করছি।

বাংলাদেশ ফ্লাওয়ারস সোসাইটির সভাপতি ও গদখালি ফুল চাষি কল্যাণ সমিতির সাবেক সভাপতি আব্দুর রহিম বলেন, সারাদেশের প্রায় ৩০ লাখ মানুষের জীবিকা এই ফুলকে কেন্দ্র করে। প্রায় ২০ হাজার কৃষক ফুল চাষের সঙ্গে সম্পৃক্ত। এর মধ্যে কেবল যশোরেই ৫-৬ হাজার ফুল চাষি রয়েছেন। সারা বছর অল্প ফুল বিক্রি হলেও মূলত ফেব্রুয়ারি মাসের বিভিন্ন দিবসকে সামনে রেখেই জোরেসোরে এখানকার চাষিরা ফুল চাষ করে থাকেন। এবার ফুলের দাম বাড়ায় বিক্রি ৬০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন তারা।

যশোর আঞ্চলিক কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে ফুলের আবাদ হয়েছিল ৬৩২ হেক্টর, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে ৬৩৩ হেক্টর এবং ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে আবাদ হয়েছিল ৬৩৬ হেক্টর জমিতে। চলতি বছরেও একই পরিমাণ জমিতে ফুলের আবাদ হয়েছে।

যশোর আঞ্চলিক কৃষি অফিসের উপপরিচালক এমদাদ হোসেন জানান, জেলায় ৬৩২ হেক্টর জমিতে বাণিজ্যিকভাবে ফুলের আবাদ করা হয়েছে।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর