বৃহস্পতিবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯   ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
যশোরে বিনামূল্যে মিলছে হার্ট অ্যাটাকে জীবন রক্ষাকারী ৬ ইনজেকশন ঝিনাইদহে আয়কর দাখিলে মানুষের আগ্রহ বেড়েছে শেষ ষোলোয় টিকে থাকতে রাতে মাঠে নামছে আর্জেন্টিনা ঝিনাইদহে তিন হাজার কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ বেনাপোলে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি বই বিক্রির অভিযোগ
৫০

রাজবাড়ীতে সামাজিক-সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২  

রাজবাড়ীতে সামাজিক-সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সদর উপজেলা পরিষদের হলরুমে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খানের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, বিশেষ অতিথি হিসেবে জেলা পরিষদের প্রশাসক বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকীর আব্দুল জব্বার, পুলিশ সুপার এম এম শাকিলুজ্জামান, সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ ইব্রাহিম টিটন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডঃ ইমদাদুল হক বিশ্বাস, রাজবাড়ী পৌরসভার মেয়র আলমগীর শেখ টিটু, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মার্জিয়া সুলতানা, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবুল হোসেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ সাহাবুদ্দীন, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদে সভাপতি প্রদীপ্ত চক্রবর্তী কান্ত।

সেই সঙ্গে রাজবাড়ী আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়া খানকা শরীফ বড় মসজিদের ইমাম মাওলানা মোঃ শাহজাহান, মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক তোফাজ্জেল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি প্রফেসর ফকরুজ্জামান মুকুট, জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ক্রিস্টিনা মারিও রেখা, প্রফেসর শংকর চন্দ্র সিনহা, রাজবাড়ী ব্যাপ্টিস্ট চার্চের যাজক জেমস হলদার, মাওলানা আবু সাইদ তৈয়বী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ মাহাবুর রহমান শেখ এবং সঞ্চালনা করেন সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ইকবাল হাসান। এ সময় সরকারী দপ্তরের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী বলেন, রাজবাড়ী জেলাতে আমরা সব ধর্মের মানুষ মিলেমিশে বসবাস করি। সবার মধ্যে সম্প্রীতির বন্ধন রয়েছ। এখন পর্যন্ত সামাজিক সম্প্রীতি নষ্ট হওয়ার মতো তেমন কোনো ঘটনা ঘটে নাই। তবে কিছু মানুষ আছে যারা উস্কানী দিয়ে প্রতিমা ভাংচুর করে সম্প্রীতির বন্ধন নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করে থাকে। এ জন্য শারদীয় দুর্গোৎসবকে সামনে রেখে সরকারী উদ্যোগে সারা দেশে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশের আয়োজন করা হচ্ছে। প্রতিটি ইউনিয়নে এই সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশের নির্দেশনা রয়েছে। সেই সাথে দুর্গা পূজা ম-পগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে। 

জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, বাঙালীর চিরায়িত ঐতিহ্যের সামাজিক সম্প্রীতি বজায় রাখতে জাতি, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে একসাথে শান্তিতে বসবাস করার প্রত্যয়ে নিয়ে কাজ করতে হবে। পরস্পরকে সম্মান করতে হবে। পৃথিবীর প্রতিটি ধর্মের মহাপুরুষগণ সত্য ও সুন্দরের বাণী প্রচার করে গেছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় এ দেশ স্বাধীন হয়েছিল।

যারা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন তারা হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রিস্টান হিসেবে নয়-বাঙালী হিসেবে অংশগ্রহণ করেছিলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন অনুযায়ী ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে হলে আমাদের সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে। নিজের ধর্মের পাশাপাশি প্রতিটি ধর্মকে শ্রদ্ধা করতে হবে।  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে ছড়িয়ে পড়া গুজব মোকাবেলায় জনপ্রতিনিধিসহ সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর