শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২   আষাঢ় ১৭ ১৪২৯   ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
১৬ লাখ পথশিশুকে জন্মনিবন্ধন সনদ দিতে হাইকোর্টের রুল ই-গেটের মাধ্যমে মিনিটেই ইমিগ্রেশন পার জঙ্গিরা কোণঠাসা, ‘বাংলাদেশ’ দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে নিরাপদ বিসিক যশোরের ৩০জন প্রশিক্ষণার্থীর মাঝে সনদ বাঘারপাড়া পৌরসভায় প্রায় ২০ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা
২৮০৭৪

বিকাশের প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন: ভোক্তা অধিকারে মামলা

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৮ নভেম্বর ২০২১  

মোবাইলে আর্থিক সেবা দেয়া প্রতিষ্ঠান বিকাশের বিভ্রান্তিকর বিজ্ঞাপন দেখে প্রতারণার শিকার হচ্ছে গ্রাহকরা। এর ফলে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ করেছেন কাজী জহিরুল ইসলাম নামে এক ভুক্তভোগী।

বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) বিকাশের সেন্ড মানি শীর্ষক প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার জন্য তিনি এ অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন, সম্প্রতি বিকাশ টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন প্রচার করছে। যেখানে বলা হচ্ছে বিকাশে ক্যাশ আউট চার্জ কমেছে। আর সেন্ড মানি তো ফ্রি। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে বিকাশে সবার জন্য ক্যাশ আউট চার্জ কমেনি এবং সেন্ড মানিও সব সময় ফ্রি নয়। 

প্রতিষ্ঠানটি প্রিয় নম্বর হিসেবে একটি বিকাশ এজেন্ট নাম্বার অথবা পাঁচটি পারসোনাল বিকাশ প্রিয় নাম্বার হিসেবে তালিকাভুক্ত করার সুযোগ দিচ্ছে। শুধুমাত্র একটি নম্বরে ক্যাশ আউট করা যাবে ফ্রিতে। সেটিও মাসে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা। আর মাত্র পাঁচটি প্রিয় বিকাশ নম্বরে সেন্ড মানি ফ্রি। তবে পাঁচটি নাম্বার মিলিয়ে একমাসে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত এই সুবিধা পাওয়া যাবে।

কিন্তু বিজ্ঞাপনের তারা প্রিয় নম্বরের সংখ্যা ও ২৫ হাজার টাকার সীমাবদ্ধতার বিষয়টি সুকৌশলে ছোট করে উল্লেখ করছে। আর বিজ্ঞাপনে যিনি মুখে 'বিকাশে ক্যাশ আউট চার্জ কমেছে আর সেন্ড মানি তো ফ্রি' বলছেন তিনি প্রিয় নম্বার ও টাকার লিমিটেশন শর্তের কথা বলছেন না।

বিজ্ঞাপনটির শেষে ছোট করে এক কোনায় লেখা দেখানো হয় যা সহজে বোধগম্য নয়। যারা বিজ্ঞাপনটি শুনছেন তারা বিজ্ঞাপনে মডেলের মুখের এক্সপ্রেশন দেখছেন। তারা ছোট লেখার বিষয়টি জানতে পারছেন না। বিষয়টি সম্পূর্ণ প্রতারণামূলক। ফলে গ্রাহকরা প্রতারিত হচ্ছেন। তাই বিকাশের প্রতারণামূলক এই বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার আবেদন জানিয়েছেন এই ভুক্তভোগী।

এ দিকে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগীর অভিযোগটি মামলা হিসেবে রুজু করেছে ভোক্তা অধিদপ্তর। অচিরেই বিকাশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর