শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২   আষাঢ় ১৭ ১৪২৯   ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
১৬ লাখ পথশিশুকে জন্মনিবন্ধন সনদ দিতে হাইকোর্টের রুল ই-গেটের মাধ্যমে মিনিটেই ইমিগ্রেশন পার জঙ্গিরা কোণঠাসা, ‘বাংলাদেশ’ দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে নিরাপদ বিসিক যশোরের ৩০জন প্রশিক্ষণার্থীর মাঝে সনদ বাঘারপাড়া পৌরসভায় প্রায় ২০ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা
৩১

বিয়ের দিন প্রত্যেক কনের মাথায় যে পাঁচ চিন্তা আসে

প্রকাশিত: ১৯ মে ২০২২  

প্রত্যেক নারীই বিয়ে নিয়ে নানারকম স্বপ্ন থাকে। বিয়ের পরবর্তী জীবন নিয়ে তাদের মধ্যে নানারকম ভাবনা চলতে থাকে। বিয়ের দিনটি অবশ্যই প্রত্যেক নারীর জীবনে একটি বিশেষ দিন। কারণ সেদিন তিনি তার পছন্দের মানুষের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে বাঁধা পড়বেন।

কিন্তু এই বিশেষ দিনেও কনের মাথায় কয়েকটি চিন্তা চলতে থাকে। আসলে বিয়ের দিন কনের মাথায় যে নানারকম চিন্তা চলবেই, সে ধারণা খুবই স্বাভাবিক। কখনো তার মনে হয় সঠিক সময়ে মেকআপ শেষ হবে তো, আবার কারো মনে হয় তিনি সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিনা। এরকম নানা চিন্তা মাথার মধ্যে ঘোরা ফেরা করতে থাকে। আজ আমরা এমনই পাঁচটি চিন্তা সম্পর্কে জানবো, যা প্রত্যেক কনের মাথাতে বিয়ের দিন আসবেই। চলুন জেনে নেয়া যাক- 

আমি কি সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি?

এই নিয়ে কোনো অনিশ্চয়তা নেই যে, প্রত্যেকেই প্রত্যেকের পছন্দের মানুষকে খুঁজে নেন। কিন্তু তাও বিয়ের দিন মাথায় অন্যরকম চিন্তা আসবেই। আপনার মনে হবেই যে, আপনি সঠিক মানুষ বেছে নিয়েছেন কিনা। আপনি যার সঙ্গে বিয়ে করতে চলেছেন, তিনি আপনাকে ভালো রাখবেন কিনা। এরকম নানা চিন্তা আপনার মধ্যে থাকে।

আসলে তিনি যদি জীবনসঙ্গী হিসেবে ভালো হন, তাহলে আপনার সারা জীবন খুব ভালো কাটবে। তিনি আপনাকে ভালো রাখবেন। তাই এরকম চিন্তা এলেও তাকে খুব গুরুত্ব দেওয়ার দরকার নেই।

পরিবারের সদস্যদের ছাড়া কীভাবে থাকব?

এই চিন্তা আসা খুবই স্বাভাবিক। আপনি এতদিন আপনার পরিবারের মানুষের সঙ্গে ছিলেন। ছোট থেকে আপনার নানা মুহূর্ত তৈরি হয়েছে। তাদের সঙ্গে আপনার রক্তের সম্পর্ক। বিবাহের পরের দিনই তাদের ছেড়ে চলে যেতে হবে। শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা কেমন হবেন, এই নিয়ে আপনার মনে চিন্তা হবেই তা খুব স্বাভাবিক ব্যাপার। স্বজনদের ছেড়ে গেলে আমাদের মন খারাপ করেই। কিন্তু নতুন জীবন আপনার জন্যে অপেক্ষা করে আছে। তাকে স্বাগত জানান। দেখবেন ভয় কেটে গিয়েছে।

প্ল্যান মতো কি সব হবে?

প্রত্যেক কনেই এরকম ভেবে থাকেন। কারণ বিয়ের দিন নানারকম পরিকল্পনা আমাদের থাকে। সকালে অনুষ্ঠান থাকে। বৃদ্ধির পরে গায়ে হলুদ হয়। তারপরই মেকআপ শিল্পী আপনাকে সাজাতে চলে আসেন। সন্ধ্যা হতে না হতেই অতিথিরা আসতে শুরু করেন। একসময় বিয়ের লগ্ন শুরু হয়।

এর মধ্যে আপনি সব কাজ প্ল্যান মতো করতে পারবেন কিনা তা নিয়ে আপনার চিন্তা হওয়াই স্বাভাবিক। তবে এই চিন্তাকে খুব বেশি গুরুত্ব না দেওয়াই ভালো। কারণ আপনি জেনে রাখুন, যতই ব্যস্ত থাকুন না কেন, সঠিক সময়ে ঠিক আপনার কাজ হয়ে যাবে।

আমার শ্বশুরবাড়ির লোকজন কেমন হবে?

কনের মাথায় এই নিয়ে কোনও চিন্তা আসবে তা স্বাভাবিক। কারণ নিজের কম্ফোর্ট জোন থেকে বেরিয়ে সে নতুন করে নতুন পরিবেশে নিজেকে মানিয়ে নিতে শুরু করবে। নতুন অভ্যাসকে নিজের করবে। এখন শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা যদি ভালো না হন, তবে তার বিবাহিত জীবন দুঃখের হতে পারে। তার শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা যদি ভালো হন, তবে তার জীবনও সুখের হতে পারে। শ্বশুরবাড়ির লোকজন কেমন হবে, তা নিয়ে তাই প্রত্যেক কনের মাথাতেই চিন্তা চলতে থাকে।

ফুলশয্যা নিয়ে নানা ভাবনা

প্রত্যেক দম্পতির জীবনেই বিবাহ পরবর্তী প্রথম রাত খুব বিশেষ হয়। কোনো কনেই সেই বিশেষ অনুভূতি থেকে নিজেকে বঞ্চিত করতে চাইবেন না। ওই রাতে তিনি প্রথমবার তার বিশেষ মানুষের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্ত কাটাবেন। এমন যদি নাও হয়, যদি বাগদত্তার সঙ্গে কনে বিয়ের আগেও ঘনিষ্ঠ মুহূর্ত ভাগ করে নেন, তবেও ফুলশয্যার রাত নিয়ে তার মনে বিশেষ ভাবনা থাকবেই।

আর সেটাই খুব স্বাভাবিক বিষয়। যদি এরকমই হয় আপনারও, তবে খুব বেশি এই নিয়ে ভাববেন না। নার্ভাস লাগলে অবশ্যই আপনার বাগদত্তাকে সেই বিষয়ে জানান। দুজনে আলোচনা করে নিলে দেখবেন সব সমস্যাই সহজে সমাধান হয়ে যাবে।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো