বৃহস্পতিবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯   ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
আওয়ামী লীগ কখনো সন্ত্রাস প্রশ্রয় দেয় না এইডস রোগীদের জন্য যশোরে হচ্ছে এআরটি সেন্টার যশোরে খেজুরের রস আহরণে ব্যস্ত সময় পার করছেন গাছিরা লিসবন বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মাননা পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী সোহেল মুক্তিযুদ্ধের নয় মাস অক্ষত ছিল যে পতাকা খালেদা জিয়া সমাবেশে যোগ দিলে আদালত ব্যবস্থা নেবেন
৪৯

পেট ভরে ভাত খেয়েও ওজন ঠিক রাখবেন যেভাবে

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০২২  

কথায় বলে মাছে ভাতে বাঙালি। ভাত খেতে পছন্দ করেন না এ রকম বাঙালি পাওয়া ভার। তবে এই ভাত খাওয়া নিয়েই কিন্তু রয়েছে নানা মুনির নানা মত। কখন, কীভাবে এবং কতটা পরিমাণে ভাত খাওয়া যায়, তা নিয়ে তর্ক-বিতর্ক আছে যথেষ্টই।

কেউ বলেন ভাত খেলে ওজন বাড়ে না। আবার কেউ বলেন খুব দ্রুত ওজন বেড়ে যায়। তবে পুরো বিষয়টিই কিন্তু নির্ভর করছে আপনার পাতে ভাতের পরিমাণের উপরে।

সোডিয়াম, কোলেস্টেরল এবং গ্লুটেন মুক্ত ভাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট, পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, ভিটামিন ডি, নিয়াসিন, ভিটামিন বি ১-থায়ামিন, ক্যালশিয়াম আর ফাইবার। এটি লো ফ্যাট ও লো সুগার জাতীয় খাবার। পুষ্টিবিদেরা জানাচ্ছেন, ১০০ গ্রাম ভাতে প্রায় ১০০ গ্রাম ক্যালোরি রয়েছে।

কিন্তু অনেকেই ভাত খেতে পারেন না মন খুলে। ওজন বেড়ে যাওয়ার ভয়ে। কিন্তু যদি অন্য উপায়ে ভাত খাওয়া যায়, তা হলে কেমন হয়? স্বস্তিতে ভাতও খেতে পারবেন, আবার চেহারা ভারী হয়ে যাওয়ার ভয়ও থাকবে না।

খুব সহজেই বানিয়ে নিতে পারেন খিচুড়ি। চালের সঙ্গে ডাল আর সবজি মিশিয়ে নিলে এর পুষ্টিগুণ বেশ খানিকটা বেড়ে যায়। বিকল্প হিসেবে ব্রাউন রাইসও খেতে পারেন। কারণ এই চালের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স অনেকটাই কম। ওজন বেড়ে যাওয়ার সমস্যা এ ক্ষেত্রে প্রায় নেই বললেই চলে।

ভাতে রয়েছে প্রচুর ক্যালোরি, যা শরীরে শক্তির জোগান দেয়। তবে ভাত কতটা পরিমাণে খাচ্ছেন, সে বিষয়টায় নজর দেওয়া প্রয়োজন। নিয়মিত ভাত খেতে বসে মাত্রা ঠিক রাখতে না পারলে সমস্যার আশঙ্কা খুব বেশি। ডায়েটে অল্প পরিমাণে ভাত রাখা যেমন জরুরি, ঠিক তেমনই ওজন খুব বেশি হলে বা সুগার থাকলে নিজে থেকে সিদ্ধান্ত না নেয়াই ভালো। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই নিন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো