সোমবার   ২৫ অক্টোবর ২০২১   কার্তিক ১০ ১৪২৮   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

  যশোরের আলো
সর্বশেষ:
উদ্বোধন হলো স্বপ্নের পায়রা সেতু কৃষি উদ্যোক্তাদের সহযোগিতায় হবে বিশেষ সেল অবশেষে দেশে চালু হচ্ছে পেপ্যাল নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে ৪০ ভাগ বিদ্যুত নেয়ার পরিকল্পনা স্বল্পোন্নত দেশের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে এগিয়ে বাংলাদেশ
১৫১৪

দল বাঁচাতে পদত্যাগ করতে পারেন বয়স্ক নেতারা!

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ১৯ মার্চ ২০২১  

দেশে আন্দোলনের হাজারো ইস্যু থাকলেও বিএনপি শুধুমাত্র খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে ব্যস্ত। তবে নেত্রীর মুক্তির ব্যর্থতার জন্য এবার ক্ষমতাসীনদের দোষারোপ করা বাদ দিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের সমালোচনায় মেতেছেন দলটির সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।

নেতারা মনে করেন, সাংগঠনিক দুর্বলতার কারণেই শক্তিশালী আন্দোলন গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়েছে বিএনপি। ফলে তিন বছরেও মুক্তি মেলেনি খালেদা জিয়ার। দলীয় প্রধানের মুক্তি ও দলকে বাঁচাতে অবিলম্বে যোগ্য নেতৃত্ব বাছাইয়ের তাগিদ দিয়েছেন তারা।

দলীয় নেতাকর্মীদের ব্যর্থতার বিষয়টি স্বীকার করে স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, বেগম জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকেই বিএনপির রাজনীতির মূল লক্ষ্য হয়ে দাঁড়ায় তার মুক্তির জন্য কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা। অথচ সেই আন্দোলন গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়েছেন বিএনপির নেতৃবৃন্দ। এরপরও তৃণমূলের চাপে পড়ে কেন্দ্র যেসব কর্মসূচি পালন করছে তা যথেষ্ট নয়।

তিনি আরো বলেন, বিগত ১৪ বছর থেকে আমরা শুধু আন্দোলনের ডাক দিয়েই যাচ্ছি। তবে এ আন্দোলন আর সামনে এলো না। এখন নতুন করে আন্দোলনের ডাক দিতেও লজ্জা লাগে। কারণ সত্যি কথা বলতে আন্দোলন করার মতো যে পরিমাণ সাংগঠনিক সক্ষমতা প্রয়োজন, সেটি বিএনপির আপাতত নেই।

এ বিষয়ে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএনপির যেসব গুরুত্বপূর্ণ নেতা দলের দায়িত্বে রয়েছেন তারা আমার দৃষ্টিতে ব্যর্থ। অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে পারেননি তারা, যার কারণে বেগম জিয়া জেলে আর বিএনপি প্রেস ব্রিফিংয়ের রাজনীতিতে আটকে আছে। আমি বলতে চাই, বিএনপির এই স্ট্যান্ডিং কমিটির সকলের পদত্যাগ করা উচিৎ। এই কমিটি দল পরিচালনার জন্য অযোগ্য। দলের সাংগঠনিক দুর্বলতার জন্য বিরোধী দল নয় বরং আমাদের ভীতির রাজনীতি দায়ী।

  যশোরের আলো
  যশোরের আলো
এই বিভাগের আরো খবর