বুধবার   ১৭ এপ্রিল ২০২৪   বৈশাখ ৩ ১৪৩১   ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

চট্টগ্রামে কবুতরের হাট

নিউজ ডেস্ক:

যশোরের আলো

প্রকাশিত : ০৯:২২ এএম, ৮ জুলাই ২০১৯ সোমবার

জ্যাকোবিন, হেলমেট, পেখুম মেলা, গিরিবাজ, ময়ুর পংখী, কিংবা সিরাজী কি নেই চট্টগ্রামের এই হাটে। নানা নামের নানা জাতের খাঁচায় বন্দি এসব কবুতরের হাট বসে সাপ্তাহে দু’দিন, চট্টগ্রামের দেওয়ানহাট বাজারে। আর কবুতর প্রেমীরা ভীড় জমান এই হাটে।

শান্তির প্রতীক পায়রা। এক সময় প্রেমিক-প্রেমিকার চিঠি কিংবা যুদ্ধ ক্ষেত্রে বার্তা পাঠানোর হতো কবুতরের মাধ্যমে। রাজা-বাদশাহরাও শখে বসে লালন-পালন করতেন কবুতর। প্রযুক্তির প্রসারে কবুতরের পায়ে বেধে বার্তা পাঠানোর সেই দিন আর না থাকলে কবতুরের প্রতি মানুষের ভালবাসা এতটুকুর কোন কমতি নেই। চট্টগ্রামের দেওয়ানহাটে সাপ্তাহে দু’দিন বসে এই কবুতরের হাট। আর এই হাটেই ভীড় জমান কবুতর প্রেমীরা।

কি নেই এই বাজারে! আছে পেখম মেলা, পাংখী, লাল চিলা, গিরিবাজ, জ্যাকোবিন, ময়ূরপঙ্খীসহ নানা জাতের কবুতর। শখের বসে অনেকে কিনে নিচ্ছেন সেসব কবুতর।

কবুতর লালন পালনের মাধ্যমে ব্যস্ত থাকায় মাদকের বিষাক্ত ছোবল থেকে নিজেদের মুক্ত রাখতে পারছেন বলে মনে করেন কবুতর প্রেমী রাশেদ। কেউ কেউ আবার এই কবুতর কেনা বেচাকে নিয়েছেন ব্যবসা হিসাবে।

কবুতর লালন -পালনে উৎসাহিত করা গেলে আর্থিক ভাবে যুব সমাজ যেমন স্বাবলম্বী হবে তেমনি নৈতিক অবক্ষয় থেকে রক্ষা পাবে বলে মনে করেন এর সাথে সংশ্লিষ্টরা।